শৈলকুপায় রাত জেগে পেঁয়াজের ক্ষেত পাহারা

0

মফিজুল ইসলাম, শৈলকুপা (ঝিনাইদহ) ॥ ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলায় চোরের কারণে পেঁয়াজ ক্ষেত নিয়ে চিন্তায় পড়েছেন চাষিরা। পেঁয়াজ চুরি ঠেকাতে তারা মাঠেই টাঙ্গিয়েছেন তাঁবু। সারা রাত জেগে পালাক্রমে চলছে পাহারা। শৈলকুপার মনোহরপুর গ্রামের মাঠে শাহিন হোসেন নামের এক যুবকের পেঁয়াজ চুরির ঘটনা ঘটে। এরপর থেকে গ্রামটিতে পাহারার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। গ্রামের বাসিন্দা রিয়াজুল জানান, তার ৫ বিঘা জমিতে পেঁয়াজ রয়েছে, যা ঠেকাতে রাত জেগে পাহারা দিচ্ছেন। প্রতিকূল আবহাওয়ার কারণে পেঁয়াজের ফলন কম হওয়া ও অতিরিক্ত খরচের কারণে এমনিতেই চাষিদের মাথায় হাত, তার ওপর চোরের উপদ্রব। এ যেন মরার ওপর খাড়ার ঘা। এমন পাহারা দেয়ার কথা জানান মো. জিকরুল, রাজিব হোসেন, মো. লিটন, আরাফাত হোসেনসহ অনেক চাষি।
রাতে সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, মাঠের ঠিক মাঝখানে আলো জ¦লছে। এগিয়ে যেতেই বোঝা গেল এটা তাঁবু। তার ভেতরে ১৫-২০ জন মানুষ বসে আছেন। ঘুম তাড়াতে কারো কারো হাতে শুকনা খাবার। এভাবে মাঠে তাঁবু টাঙ্গানো প্রসঙ্গে চাষি হুমায়ুন মিয়া বলেন, আর ১০-১৫ দিনের মধ্যেই পেঁয়াজ উঠানো যাবে। কিন্তু চুরি হয়ে যাবার ভয়ে দলবদ্ধভাবে রাত জেগে পেঁয়াজ ক্ষেত পাহারা দিতে হচ্ছে। এদিকে শৈলকুপার মনোহরপুর, নিত্যানন্দনপুরসহ বিভিন্ন ইউনিয়নে পুলিশের পক্ষে মাইকিং করা হয়েছে। কোন ধরনের চুরি, জোরপূর্বক পেঁয়াজ তুলে নেয়া, সামাজিক বিরোধে পেঁয়াজ লুট ঠেকাতে এমন ভূমিকা নিয়েছে পুলিশ। নিত্যানন্দনপুর ইউনিয়নে বিট পুলিশিং’র দায়িত্বে থাকা এসআই রেজাউল ইসলাম জানান, পেঁয়াজ ক্ষেতের মালিক নিজেও ফসল তুলতে পারবেন না, অনুমতি নিতে হবে প্রশাসনের। যাতে কৃষকেরা স্বস্তিতে নিজেদের ফসল ঘরে তুলতে পারেন সেজন্যই এমন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। প্রসঙ্গত, ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলায় ব্যাপকভাবে পেঁয়াজ চাষ করেন কৃষকেরা। চলতি বছর এখানে ৭ হাজার ৯’শ ৬৬ হেক্টর জমিতে পেঁয়াজ চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে। তবে লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও বেশি পরিমান জমিতে পেঁয়াজ চাষ করেছেন কৃষকেরা।

Lab Scan