শৈলকুপায় মেছোবাঘের বাসায় পানি ঢুকে শাবকের মৃত্যু

0

 

স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহ॥ নিরাপদ ভেবেই মাঠের ধান খেতের বোরিং হাউজে বাসা বেঁধেছিল বিলুপ্ত প্রজাতির মেছো বাঘ। সেখানে দুটি বাচ্চাও হয় তার। প্রায় ১৫ ফুট গভীরতার পাকা হাউজের ভেতরে বাসা তৈরি করেছিল মা বাঘটি। টানা বৃষ্টিপাতে পানি ঢুকে পড়ে হাউজে। আর এতেই বিপত্তি দেখা দেয়, বুধবার মারা যায় একটি বাচ্চা। ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার সারুটিয়া ইউনয়নের গাংকুলা গ্রামের শামছুল মাওলানার সেচ পাম্পে ঘটে এ ঘটনা। ছেলে মুনমুন ইসলাম জানান, বুধবার সকালে বাঘের মত ভয়ংকর শব্দ শুনে বোরিং ঘরে যান। টর্চের আলোয় প্রথমে বাঘ ভেবে দৌড়ে পালান। পরে আরো লোকজন ও পর্যাপ্ত আলোসহ গেলে সেখানে দেখতে পান দুটি বাচ্চাসহ একটি মা মেছো বাঘ রয়েছে সেখানে। এরপর ভোর থেকে আশপাশের গ্রামে বাঘ দেখার জন্য সেখানে ভীড় করতে থাকে। গ্রামের বাসিন্দারা একটি বাচ্চা উপরে তোলেন। এরপর আগুনের তাপ দিয়ে বাচ্চাটিকে সুস্থ করার চেষ্টা করেন। এদিকে উৎসুক জনতার ভিড়ে ভিতু হয়ে পড়ে মা মেছো বাঘটি। স্থানীয় জনগণ মেছো বাঘ উদ্ধারের জন্য বনবিভাগকে খবর দেয়। খবর পেয়ে শৈলকুপা বনবিভাগের কর্মকর্তারা একটি দঁড়ি গভীর হাউজটির ভেতরে দিয়ে মেছো বাঘটি উদ্ধার করে। ক্লান্ত মেছো বাঘটি উদ্ধারের পর আবার পাশের পুকুরে পড়ে নিজেই লাফ দিয়ে নিরাপদ জঙ্গলে চলে যায়। শৈলকুপা উপজেলা বন কর্মকর্তা মখলেছুর রহমান জানান, সুস্থভাবে মেছো বাঘ ও তার ১টিবাচ্চাকে হাউজ থেকে তুলে নিরাপদে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

Lab Scan