শালিখায় সিন্ডিকেটের তৎপরতায়ধানচাষিরা হতাশ

শহিদুজ্জামান চাঁদ, আড়পাড়া (মাগুরা) ॥ মাগুরার শালিখায় ধানের বাম্পার ফলন হলেও বাজারে ন্যায্য মূল্য না পাওয়ায় হতাশ এ অঞ্চলের কুষকেরা। সরকার চাল ও ধান সংগ্রহ শুরু করলেও ব্যবসায়ী ও মিল মালিকরা সিন্ডিকেট করে কৃষকদের সস্তায় ধান বেচতে বাধ্য করছেন বলে জানিয়েছেন একাধিক কৃষক। বোরো ধান তে থেকে উঠার পরপরই সরকার ধান সংগ্রহ অভিযান শুরু না করায় ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটগুলো এ সুযোগ কাজে লাগিয়েছে বলে অভিযোগ। দাম না পেয়ে ঠকছেন কৃষকরা।
চলতি বছরের ২ মে থেকে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সরকারিভাবে ধান ও চাল সংগ্রহ অভিযান চলবে। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী সকল জেলা-উপজেলাতে ধান ও চাল সংগ্রহ করা হচ্ছে। কিন্তু শালিখা উপজেলাতে ধান ও চাল সংগ্রহের উদ্বোধন না হওয়ায় এখন পর্যন্ত সংগ্রহ অভিযান থেমে রয়েছে বলে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কার্যালয় থেকে জানা গেছে।
কৃষি বিভাগ জানায়, এ বছর চাল উৎপাদনের ল্যমাত্রা ৫৩ হাজার ৮৭ মেট্রিক টন এবং ধান ৮০৪৩৫ মেট্রিক টন উৎপাদনের ল্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এর মধ্যে মোট আবাদী জমি রয়েছে ১৩৫৬০ হেক্টর। তবে ল্যমাত্রা অনুযায়ী উৎপাদন শতভাগ পূরণ হবে বলে জানিয়েছেন উপজেলা কৃষি অফিসার আলমগীর হোসেন। উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের কার্যালয় থেকে জানা যায়, সরকার ৩৬ টাকা কেজি দরে চাল এবং ২৬ টাকা কেজি দরে ধান কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ হিসেবে প্রতি মণ ধানের মূল্য হয় ১০৪০ টাকা। আর চালের মূল্য ১৪৪০ টাকা। চলতি বছরের ২ মে থেকে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত ধান ও চাল সংগ্রহ অভিযান চলবে। ধান ক্রয়ের সরকারি নির্দেশ পাওয়ায় এ উপজেলায় ১৫ শ ৭৬ মেট্রিক টন চাল ও ৪২২ মেট্রিক টন ধান সংগ্রহের ল্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। আড়পাড়া গ্রামের কৃষক মোঃ শফিকুল ইসলাম জানান, এক মণ ধান উৎপাদনে খরচ হয় ৭০০ থেকে ৮০০ টাকা। বর্তমান বাজারে এক মণ ধান বিক্রি হচ্ছে ৭০০ থেকে ৭৫০ টাকা। সরকারিভাবে ধান সংগ্রহ শুরু হলে প্রতি মণে ১ হাজার ৪০ টাকা পাওয়া যেত। কিন্তু ধান সংগ্রহ শুরু না হওয়ায় বাধ্য হয়ে কম দামে তিনি ধান বিক্রি করেছেন। প্রতি বছর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর থেকে কৃষকদের তালিকা সংগ্রহ করে সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ধান সংগ্রহ করা হয়। কিন্তু চলতি বছর ধান সংগ্রহের নির্দেশনা থাকলেও সংগ্রহ অভিযান চালাতে বিলম্ব হওয়ায় ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে বলে সূত্র জানিয়েছে। এব্যাপারে ধান ব্যবসায়ী মোঃ আলম মুন্সী, ইকবাল হোসেন ও রিপন বিশ্বাস জানান, গত হাটেও ধানের দাম খুব কম ছিল। এই হাটে ধানের দাম ১০০ থেকে ১৫০ টাকা প্রতি মণে বেড়েছে। সরকার ধান সংগ্রহ শুরু করলে আশা করি আরো বাড়বে।
তবে শালিখা উপজেলা সদর আড়পাড়া খাদ্য গুদামের ওসিএলএসডি মোঃ কামরুল ইসলাম বলেন, কৃষকরা যে ধানের ন্যায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত এটা ঠিক নয়।

ভাগ