শরণখোলায় হরিণের মাংস দিয়ে ফাঁসানোর অভিযোগ

0

শরণখোলা(বাগেরহাট) সংবাদদাতা॥ বাগেরহাটের শরণখোলায় মালেক ফরাজী নামের এক নিরীহ ব্যক্তিকে হরিণের মাংস দিয়ে ফাঁসানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার (৫ জুলাই) সকাল ৬টার দিকে উপজেলার বগী দশঘর গ্রামের নিজ বসতঘরের বারান্দা থেকে মাংসসহ তাকে আটক করেন বনরক্ষীরা। এ ঘটনার প্রতিবাদ ও মালেক ফরাজীর মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছেন গ্রামবাসী।

স্থানীয় শিক্ষক মাহামুদ হাসান, ইউপি সদস্য রিয়াদুল পঞ্চায়েত, হানিফ মুন্সি, আব্দুর রাজ্জাক, আবু সালেহ অভিযোগ করেন, আগামী শুক্রবার দিনমজুর মালেক ফরাজী তার ওয়ার্ডে গ্রাম পুলিশ পদে নিয়োগ পরীক্ষা দিবেন। তিনি যাতে ওই পরীক্ষায় অংশ নিতে না পারেন সেজন্যে প্রতিপক্ষ কৌশলে তার বসতঘরের ভাঙ্গা বারান্দায় তিন কেজি হরিণের মাংস পলিথিনে ঝুলিয়ে রেখে বন বিভাগকে খবর দেয়। বন বিভাগের বগী স্টেশনের বনরক্ষীরা ওই খবরে অভিযান চালিয়ে মাংসসহ মালেক ফরাজীকে আটক করে নিয়ে যান। তবে বিষয়টি তাদের কাছে সন্দেহজনক মনে হচ্ছে বলেও জানান বনরক্ষীরা। তাদের দাবি পরিকল্পিতভাবে হরিণের মাংস রেখে নিরপরাধ ব্যক্তিকে ফাঁসানো হয়েছে।
সংশ্লিষ্ট সাউথখালী ইউপি চেয়ারম্যান ইমরান হোসেন রাজিব বলেন, এটি একটি পরিকল্পিত ষড়যন্ত্র। এর আগেও প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে সুন্দরবন সংলগ্ন এলাকায় এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে। তিনি নিরপরাধ কোন ব্যক্তি যেন হয়রানির শিকার না হয় সে ব্যপারে বন বিভাগের প্রতি দাবি জানান।
সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জের বগী স্টেশন কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে তার স্টেশনের বনরক্ষীদের একটি দল মালেক ফরাজীর বসতঘরের বারান্দা থেকে তিন কেজি হরিণের মাংসসহ মালেক ফরাজীকে আকট করে স্টেশন অফিসে নিয়ে আসা হয়। কিন্তু এটি পরিকল্পিতভাবে ফাঁসানোর জন্যে বন বিভাগকে খবর দেয়া হয়েছে বলে স্থানীয়রা তাকে জানিয়েছেন। বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।
এ ব্যাপারে সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মুহাম্মদ বেলায়েত হোসেন বলেন, হরিণের মাংস দিয়ে যুবককে ফাঁনোর কথা শুনেছি। বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্যে শরণখোলা রেঞ্জের এসিএফকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

 

 

Lab Scan