শরণখোলায় পাঁচ শতাধিক পরিবার পানিবন্দি

0

শরণখোলা (বাগেরহাট) সংবাদদাতা ॥ শরণখোলা উপজেলার কদমতলায় বৃষ্টির পানি আটকে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। বলেশ্বর নদের সঙ্গে সংযুক্ত লেকটি ভরাট হয়ে যাওয়ায় বৃষ্টির পানি নামতে পারছে না। তাছাড়া, ডোবা, নালা ভরাট করে অপরিকল্পিতভাবে বাড়িঘর নির্মাণ করায় পয়নিষ্কাশনের পথও বন্ধ হয়ে গেছে। এ কারণে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দক্ষিণ পাশ, আরকেডিএস বালিকা বিদ্যালয়ের পেছন, পুরাতন পোস্ট অফিস এবং মাদরাসা এলাকার পাঁচ শতাধিক পরিবার প্রায় এক সপ্তাহ ধরে পানিবন্দি অবস্থায় রয়েছে। নানা রকম পানিবাহিত রোগব্যাধি ছড়িয়ে পড়ারও আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। রোববার দুপুরে এলাকা ঘুরে দেখা যায় এসব চিত্র দেখা যায় ।
স্থানীয় বাসিন্দা শিপন আকন, খালেক মাঝি, জব্বার হাওলাদার, ইয়াছিন হাওলাদার,রেশমা বেগম জানান, বৃষ্টি হলেই দুর্ভোগ বেড়ে যায় তাদের। ঘর থেকে বের হতে পারেন না। চারিদিকে পানি জমে থাকায় ঘরে সাপ, কেঁচো, পোকামাকড় ঢুকে পড়ছে। তাদের চুলায় পানি উঠে গেছে। রান্নার কোনো উপায় নেই।
ভুক্তভোগীরা জানান, সবাই যে যার জমির ডোবা-নালায় বালু ভরাট করে সেখানে অপরিকল্পিত বাড়িঘর তৈরি করায় পানি নিষ্কাশনের পথ বন্ধ হয়ে গেছে। এখন পরিকল্পিতভাবে ড্রেন নির্মাণ করে সমস্যার সমাধান করা যেতে পারে।
এ ব্যাপারে উপজেলা সদর রায়েন্দা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আজমল হোসেন মুক্তা বলেন, আগে পুরনো বেড়িবাঁধের পাশ থেকে পানি নামানোর একটি লেক ছিল। নতুন বেড়িবাঁধ করার সময় সেটি বন্ধ হয়ে গেছে। যে কারণে পানি নামতে না পারায় সামান্য বৃষ্টি হলেই জলাবদ্ধতা দেখা দেয়। প্রায় এক সপ্তাহ ধরে টানা বৃষ্টিতে ৫নম্বর ওয়ার্ডের পাঁচ শতাধিক পরিবার পানিবন্দি অবস্থায় রয়েছে। বিষয়টি উপজেলা প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ করে সমস্যার সমাধানের চেষ্টা করা হবে।

 

Lab Scan