লোহাগড়ায় প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে জমি থেকে উচ্ছেদের হুমকির অভিযোগ সংবাদ সম্মেলনে

0

লোহাগড়া (নড়াইল) সংবাদদাতা ॥ লোহাগড়ার জয়পুর ইউপির চাচই-ধানাইড় গ্রামে একজন সাবেক মহিলা মেম্বারকে হুমকি দিয়েছেন প্রভাবশালী লোকজন। ওই মেম্বারের পৈত্রিক জমি দখলে নিতে প্রভাবশালীরা তৎপর হয়ে উঠেছে। হুমকির প্রতিবাদে ও ন্যায় বিচারের দাবিতে গত শুক্রবার বিকেলে সিডি বাজার সংলগ্ন ওই জমিতে ওই সাবেক মহিলা মেম্বার সংবাদ সম্মেলন করে প্রশাসনের সহযোগিতা চেয়েছেন। চাচই-ধানাইড় গ্রামের (বর্তমানে লোহাগড়া) ফকির মোকাদ্দেছ হোসেনের ছেলে ফকির ওয়াহিদুজ্জামানসহ তার লোকজনে জয়পুর ইউনিয়নের সংরক্ষিত-৩নং ওয়ার্ডের সাবেক মহিলা মেম্বার ও একই গ্রামের মৃত আলী কারিকর এর মেয়ে নাজমা খানম কে হুমকি দিয়েছেন।
নাজমা খানম অভিযোগে জানান, ৭২নং চাচই-ধানাইড় মৌজার আরএস ১০৩ খতিয়ানের ৮০৬ নং দাগের ১১ শতক জমির মধ্যে সাড়ে ৫শতক জমি আমরা পাবো। পিতার মৃত্যুর পর মাসহ আমরা ৭ জনে ওই জমির উত্তরাধিকার। ইতঃপূর্বে আমরা ওই জমির কিছু অংশে বাঁশ-কাঠ-টিন দিয়ে দোকানঘর নির্মাণ করেছি। ৫শতক জমি আমাদের দখলে রয়েছে। অবশিষ্ট জমিতে দোকানঘর নির্মাণ করতে গেলে ফকির ওয়াহিদুজ্জামানসহ তার লোকজনে বাধা প্রদান করেছে। তারা আমাকে হত্যাসহ দোকানঘর ভাঙচুর বা অগ্নিসংযোগের হুমকি দিয়েছে। আমার পরিবার এখন চরম নিরাপত্তাহীনতায়। পরে ওয়াহিদুজ্জামান আদালতে ১৪৪ ধারায় মামলা দায়ের করেছে।
অভিযোগে আরও জানা গেছে, ওই জমির ওপর থাকা ১৪৪ ধারা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন পক্ষে দিতে জয়পুর ইউনিয়নের তহশিলদার আব্দুস ছালাম ১০ হাজার টাকা ঘুষ দাবি করলে সাবেক ওই মহিলা মেম্বার রাজি হননি। তাই বড় অংকের ঘুষের বিনিময়ে ভুমিদস্যু ফকির ওয়াহিদুজ্জামানের পক্ষে তহশিলদার তদন্ত প্রতিবেদন দিয়েছেন। তদন্ত প্রতিবেদনে ৫শতক জমির ওপর সাবেক ওই মহিলা মেম্বারের টিনের ছাবড়া ও টিনের বেড়া দেওয়া দোকানঘর নির্মাণের কথা স্বীকার করলেও প্রতিবেদনে তহশিলদার লিখেছেন নাজমা খানম দখলে নেই। অথচ সরেজমিনে গেলে দেখা যায় দোকানঘর সাবেক ওই মহিলা মেম্বারের দখলে রয়েছে।
স্থানীয় বাসিন্দা, রবিউল ইসলাম সুরুজ মোল্যা, টিটোন তালুকদার, সেলিম রেজা লিটু জানান, ৫শতক জমির ওপর নাজমা খানমের দোকানঘর রয়েছে। ওই জমি তার পৈত্রিক ও দখলে। অথচ প্রভাবশলীরা জবর-দখল করতে নানা অপতৎপরতা চালাচ্ছে।
নাজমা খানমের মা অসহায় বৃদ্ধ নুরী বেগম বলেন, ‘আমরা গরিব মানুষ। আমার স্বামীর ন্যায্য পাওনা জমি থেকে আমাদের উচ্ছেদের চেষ্টা করছে প্রভাবশলীরা। আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীসহ নড়াইল- ২ আসনের এমপি ও প্রশাসনের সহযোহিগতা চাই। অসহায়দের পাশে দাঁড়ানোর দাবি জানাচ্ছি। প্রশাসন আমাদের ন্যায্য জমি বুঝে দিক। ওরা আমাদের খুন করে ফেলবে।’ এ বিষয়ে বক্তব্য নিতে অভিযুক্তদের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করে পাওয়া যায়নি।

 

Lab Scan