লোহাগড়ায় গাছ কাটার প্রতিবাদ করায় পূজা উদযাপন পরিষদের নেতাকে মারধর

শিমুল হাসান, লোহাগড়া (নড়াইল) ॥ নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলায় সংখ্যালঘুর গাছ কেটে নেওয়ার প্রতিবাদ করায় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) মেম্বার এবং পূজা উদযাপন পরিষদের সহসভাপতি প্রভাত কুমার ঘোষ(৫৮) কে মারধর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার সকালে লোহাগড়ার দিঘলিয়া ইউনিয়নের লুটিয়া বাজারে এ ঘটনা ঘটে।
অভিযোগে জানা গেছে, দিঘলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের লুটিয়া ৮নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার দিঘলিয়া ইউনিয়ন পূজা উদযাপন পরিষদের সহসভাপতি প্রভাত কুমার ঘোষ সোমবার সকালে লুটিয়া বটতলা বাজারে চা পান করছিলেন। চরমাউলী গ্রামের রতন সরদারের ছেলে রিপন সরদার ওই চায়ের দোকানে এসে মেম্বরের কাছে লুটিয়া গ্রামের সরজিত ঘোষের গাছ বিক্রির বিষয়ে কথা তোলেন। মেম্বার গাছ বিক্রির বিষয়ে কোন কথা বলতে রাজি না হওয়ায় রিপন সরদার মেম্বারকে মারধর করেন। গ্রামবাসী জানায়, গত রবিবার সকালে রিপনের নেতেৃত্বে ১০/১২ জনে লুটিয়া গ্রামের সরজিত ঘোষের মেহগনি গাছ কাটা শুরু করে। এ সময় সরজিতের মা মমতা রাণী, ইউপি মেম্বার প্রভাত কুমার ঘোষসহ গ্রামের লোকজন তাদের বাধা দেন। রিপন সরদার ৪টি বড় গাছ কেটে নিয়ে চলে যান। এ ঘটনার জের ধরে সোমবার সকালে রিপন সরদার মেম্বারকে মারধর করেন। লুটিয়ার সংখ্যালঘুরা জানান, রিপন সরদার দিঘলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ওহিদ সরদারের ভাইপো। এলাকায় প্রভাবশালী। তার অপকর্মের বিরুদ্ধে মুখ খুললে গ্রাম ছাড়া করে দেবে। সন্ধ্যা হলেই আমরা অসহায় হয়ে পড়ি। নিরব চাঁদাবাজি, লুট, সন্ত্রাস এখানে মাঝে মাঝে চলে। আমরা সংখ্যালঘু। আমাদের নির্যাতন করা হয়। প্রাণভয়ে চুপ করে থাকি। অভিযুক্ত রিপন সরদারের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করে পাওয়া যায়নি। তবে, তার এক স্বজন জানান, রিপন সরজিতের ভাইয়ের বৌ এর কাছ থেকে গাছ কিনেছেন। দিঘলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নীনা ইয়াসমিন মেম্বারকে মারধরের কথা স্বীকার করে বলেন, প্রভাবশালীদের অত্যাচারে এখানকার সংখ্যালঘুরা সবসময় আতংকে দিন কাটায়। তিনি প্রশাসনের সহযোগিতা চেয়েছেন। লোহাগড়া থানার ওসি মোকাররম হোসেন জানান, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। এ বিষয়ে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ভাগ