লোভ-লালসা আবু বকর আবুকে কখনো আকৃষ্ট করতে পারেনি : স্মরণসভায় অমিত

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোর জেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি আবু বকর আবুর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে স্মরণসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। স্মরণসভায় বিএনপির আন্তর্জাতিকবিষয়ক কমিটির সদস্য ও খুলনা বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিত বলেন, আবু বকর আবু একজন সৎ আদর্শবান ও জনদরদি নেতা ছিলেন।
বিএনপির প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের আদর্শ বুকে ধারণ করে আমৃত্যু দলের প্রতি অনুগত ছিলেন তিনি। সততা নিষ্ঠার ওপর ছিলেন সব সময় অবিচল। লোভ লালসা তাকে আকৃষ্ট করতে পারেনি। এ কারণে নীতি আদর্শ থেকে তিনি কোন সময় বিচ্যুতি হননি। একজন বড়মাপের নেতা হয়েও অত্যন্ত সহজ সরল ও সাদামাঠা জীবনযাপন করতেন। ব্যক্তিগত চাওয়া পাওয়া বলতে কিছুই ছিল না। জীবনের সব কিছুই জনগণের জন্যে করেছেন।
গতকাল মঙ্গলবার জেলা বিএনপির আয়োজনে দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। অনিন্দ্য ইসলাম অমিত আরও বলেন, একজন সৎ আদর্শিক নেতা হিসেবে তিনি সকলের কাছে অনুকরণীয়। কোন ছোট পরিসরে তার সম্পর্কে বলে শেষ করা যাবে না। তিনি দলের কর্মীদের নিজের সন্তানের মত লালন করতেন। শ্রম অর্থ দিয়ে তিনি দল প্রতিষ্ঠায় ভূমিকা রাখেন। সর্বগুণে গুনান্বিত এই রাজনৈতিকের ব্যক্তি জীবনে কারো সাথে কোন শত্রুতা ছিল না। আমরা চাই, সরকার তার প্রকৃত হত্যাকারীদের খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করুক। যেন তার মত এভাবে কারও জীবন দিতে না হয়।
স্মরণসভায় জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যাপক নার্গিস বেগমের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন- কেন্দ্রীয় বিএনপির সহধর্মবিষয়ক সম্পাদক অমলেন্দু দাস অপু, জেলা বিএনপির সদস্য সচিব অ্যাড. সৈয়দ সাবেরুল হক সাবু, যুগ্ম আহ্বায়ক দেলোয়ার হোসেন খোকন, আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আব্দুস সালাম আজাদ, সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী আজম, নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মুনীর আহম্মেদ সিদ্দিকী বাচ্চু, ঝিকরগাছা উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক মোর্তজা এলাহী টিপু, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি রবিউল ইসলাম, জেলা যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক নাজমুল হোসেন বাবুল, জেলা তাঁতীদলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক মাসুদুর রহমান, জেলা মৎস্যজীবী দলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক হাসানুজ্জামান বাবলু, জেলা ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ নেওয়াজ ইমরান প্রমুখ। সভা পরিচালনা করেন সাবেক যুবদল নেতা ও পৌর কাউন্সিলর মনিরুজ্জামান মাসুম। পরে আবু বকর আবুর আত্মার মাগফিরাত কামনায় মুনাজাত করা হয়।

ভাগ