লিফলেট বিতরণের মধ্য দিয়ে শুরু প্রচারণা: খুলনা শহীদ হাদিস পার্কে বিভাগীয় সমাবেশের অনুমতি পেল বিএনপি

খুলনা ব্যুরো ॥ বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে খুলনা শহীদ হাদিস পার্কে বিএনপির খুলনা বিভাগীয় সমাবেশ করার অনুমতি দিয়েছে পুলিশ প্রশাসন। গতকাল রোববার দুপুরে বিএনপি কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও মহানগর সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, ২৫ জুলাই বৃহস্পতিবার দুপুর ২ টায় সমাবেশের কার্যক্রম শুরু হবে। বিএনপির সংগ্রামী মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখবেন। এছাড়া সমাবেশে বক্তব্য রাখবেন জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্যবৃন্দ, সিনিয়র নেতৃবৃন্দ এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের শীর্ষ নেতারা।
গতকাল রোববার লিফলেট বিতরণের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে সমাবেশ সফল করার ল্েয আনুষ্ঠানিক প্রচারণা। দুপুর ১২ টার দিকে কে ডি ঘোষ রোডে দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে লিফলেট বিতরণ শুরু হয়। বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও খুলনা মহানগর শাখার সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জুর নেতৃত্বে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মী লিফলেট হাতে নেমে পড়েন রাজপথে। এ সময় রাস্তায় চলাচলরত বিভিন্ন যানবাহনের চালক ও যাত্রী, পথচারী, দু পাশের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ক্রেতা-বিক্রেতা, অফিস আদালতের কর্মকর্তা-কর্মচারী, শ্রমজীবী জনতার হাতে সমাবেশে যোগ দেওয়ার আহবান সম্বলিত লিফলেট তুলে দেয়া হয়। দলীয় সূত্র জানায়, গণতান্ত্রিক আন্দোলনের আপোসহীন নেত্রী সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিএনপির চেয়ারপারসন মাদার অব ডেমোক্রেসি দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তিসহ গণতন্ত্র ও জনগণের ভোটের অধিকার পুনঃপ্রতিষ্ঠা, ভোট ডাকাতির সংসদ বাতিল ও পুনঃনির্বাচনের ব্যবস্থা, নারী-শিশু নির্যাতন, গুম-খুন-বিরোধীমত দমন বন্ধ, স্বাধীন বিচার বিভাগ ও গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠা, পাটকল শ্রমিকদের ন্যায্য দাবি পূরণ, ধানসহ কৃষকের উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্যমূল্যের দাবিতে এবং ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান লুট, গ্যাসসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যমূল্য বৃদ্ধি, দুর্নীতি ও অপশাসনের প্রতিবাদে বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এই বিভাগীয় সমাবেশ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এদিকে কর্মসূচিতে ঘিরে খুলনা বিএনপির নেতাকর্মীদের মাঝে বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনা এবং প্রাণচাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। মামলা-হামলা-নির্যাতন-অত্যাচার এবং হয়রানির শিকার নেতাকর্মীরা বিভাগীয় সমাবেশ কর্মসূচিকে ঘিরে পুনরুজ্জীবিত হয়ে উঠছেন বলেই মনে করছেন তারা। বিএনপির লিফলেট বিতরণ কর্মসূচি শেষ হতেই ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, শ্রমিক দল এবং মহিলা দলের নেতাকর্মীরা নেমে পড়েন লিফলেট বিতরণ করতে। তারা মধ্যরাতের ভোট ডাকাতির নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের অধিকার হরণকারী সরকারকে সতর্ক বার্তা পৌঁছে দিতে ২৫ জুলাইয়ের সমাবেশে সবাইকে যোগ দেওয়ার আহবান জানান। জনগণও তাদের সেই আহবানে সাড়া দেন এবং একমত প্রকাশ করেন। লিফলেট বিতরণ কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সভাপতি অ্যাড. এস এম শফিকুল আলম মনা, মনিরুজ্জামান মনি, আমীর এজাজ খান, অধ্যাপক ডা. গাজী আব্দুল হক, শেখ মোশারফ হোসেন, শাহজালাল বাবলু, রেহানা আক্তার, স ম আব্দুর রহমান, শেখ ইকবাল হোসেন, মনিরুজ্জামান মন্টু, শেখ আব্দুর রশীদ, মোল্লা খায়রুল ইসলাম, অধ্য তারিকুল ইসলাম, সিরাজুল হক নান্নু, নজরুল ইসলাম বাবু, আসাদুজ্জামান মুরাদ, কামরুজ্জামান টুকু, মোল্লা মোশারফ হোসেন মফিজ, শামসুল আলম পিন্টু, মেহেদী হাসান দীপু, মহিবুজ্জামান কচি, শফিকুল আলম তুহিন, শাহিনুল ইসলাম পাখী, মুর্শিদুর রহমান লিটন, মুজিবর রহমান, ইকবাল হোসেন খোকন, এহতেশামুল হক শাওন, শেখ সাদী, খায়রুল ইসলাম খান জনি প্রমুখ। এদিকে বিএনপি সহ-দপ্তর সম্পাদক সাসছুজ্জামান চঞ্চল স্বারিত ইমেল বার্তায় জানানো হয়, বিভাগীয় সমাবেশ কর্মসূচি সফল করতে গঠিত ১২ টি উপ-কমিটির সদস্যরা বৈঠকে বসছেন। দায়িত্ব পালনে সিদ্ধান্ত নিতে এসব বৈঠকে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা হচ্ছে। মহানগরের বাইরে সকল থানা, ওয়ার্ড এবং প্রত্যন্ত ইউনিয়ন পর্যন্ত প্রস্ততি সভা, উঠান বৈঠক, প্রচারণা-গণসংযোগ শুরু হয়েছে।

ভাগ