লকডাউন শিথিলের দ্বিতীয় দিনে চৌগাছায় মানুষের ভিড়

0

স্টাফ রিপোর্টার, চৌগাছা (যশোর) ॥ দুই সপ্তাহ কঠোর লকডাউনের পর গত বৃহস্পতিবার হতে তা শিথিল করা হয়েছে। শিথিলের দ্বিতীয় দিন ছিল চৌগাছার সাপ্তাহিক হাটের দিন। লকডাউন শেষে খুলেছে বাজার তাই কেনা কাটার ,জন্যে সকাল থেকেই মানুষ বাজারে হুমড়ি খেয়ে পড়ে। কিন্তু অনেকেই স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই ঘুরেছেন বাজারে। মানুষের সরব উপস্থিতির সুযোগে অসাধু ব্যবসায়ীরা পণ্যের দাম বৃদ্ধি করে দেয়।
শুক্রবার ছিলো চৌগাছার সাপ্তাহিক হাটের দিন । এক দিকে লকডাউন শিথিল অন্যদিকে পবিত্র ঈদুল আযহা সন্নিকটে, তাই কেনাকাটার উদ্দেশ্যে সব শ্রেণি পেশার মানুষের ঢল নামে বাজারে। কাঁচা বাজার থেকে মাছ বাজার, মুদি দোকান, গার্মেন্টস, মাংসের দোকান সর্বত্রই মানুষ আর মানুষ। এদিকে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী পণ্যের দাম বেশি নিচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন ক্রেতাসাধারণ।
সকাল ১০ টার দিকে বাজারের একটি মাংসের দোকানে যেয়ে দেখা যায়, গরুর মাংস ৫৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। পৌর সদরে অন্তত ১০ টি মাংস বিক্রির দোকান আছে। প্রতিটি দোকানের সামনে লাইন দিয়ে মাংস কিনছেন ক্রেতারা। পুড়াপাড়ার আমিনুর রহমান বলেন, বাড়িতে আত্মীয় এসেছে তাই ২ কেজি গরুর মাংস কিনতে এসেছি। কিন্তু কেজি প্রতি ৪০ থেকে ৫০ টাকা বেশি দরে মাংস বিক্রি করছে। কোন উপায় নেই তাই বেশি দরেই কিনতে হচ্ছে।
মাংস বিক্রেতা আশা মিয়া, মাছুম, ইন্তাজ আলি, আলাউদ্দিন বলেন, দুই সপ্তাহ পর মাংস বিক্রি করছি, গরু কিনেছি চড়া দামে তাই বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে।
চৌগাছা বাজার ব্যবসায়ী সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজিজুর রহমান বলেন, করোনা মহামারির এই দুঃসময়ে কোনোভাবেই অধিক মূল্যে পণ্য বিক্রি করা যাবে না এবং বিক্রেতাকে আগে স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে তারপর ক্রেতা।

Lab Scan