রামপালে ছেলের মামলায় মায়ের লাশ উত্তোলন

0

রামপাল (বাগেরহাট) সংবাদদাতা॥ রামপালে ছেলে শেখ ফরিদ রহমানের করা পিটিশন মামলায় আদালতের আদেশে ১৪৭ দিন পরে বৃদ্ধ মায়ের লাশ উত্তোলন করেছে খুলনার সিআইডি। উপজেলার রোমজাইপুর গ্রামের মো. আব্দুল হক শেখের স্ত্রী  জাহানারা বেগমের (৬৬) গলিত লাশ কবর থেকে উত্তোলন করা হয়েছে।
খুলনার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতের (আড়ংঘাটা থানা) নির্দেশে বৃহস্পতিবার বেলা সোয়া ১২ টার দিকে রামপাল উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শেখ সালাউদ্দীন দিপুর উপস্থিতিতে জাহানারার মরদেহ উত্তোলন করা হয়।
খুলনার রায়েরমহল পশ্চিমপাড়ায় মোহাম্মদ আব্দুল হকের সাথে বসবাস করতেন তার স্ত্রী জাহানারার বেগম। দীর্ঘদিন তিনি বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে অসুস্থ ছিলেন। সম্প্রতি এক রাতে ছোট মেয়ে নারগিস খাতুনের ঘরে জাহানারা মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুর পর তার লাশ বাগেরহাটের রামপালের রোমজাইপুর গ্রামের বাড়িতে দাফন করা হয়। একমাত্র ছেলে ফরিদ রহমানকে না জানিয়ে মায়ের লাশ দাফন করা হয়েছে এমন অভিযোগে ছেলে বাদি হয়ে গত ৬ এপ্রিল খুলনার মেট্রোপলিটন আদালতে একটি পিটিশন মামলা করেন।
আদালত শুনানী শেষে বাগেরহাটের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে মরদেহ উত্তোলন করে ময়না তদন্তের জন্যে চিঠি দেন। বাগেরহাটের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. আরিফুল ইসলাম রামপালের সহকারী কমিশনার শেখ সালাউদ্দীন দিপুকে উপস্থিত থেকে লাশ উত্তোলনের নির্দেশ দেন।
বৃহস্পতিবার দুপুরে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা খুলনার সিআইডি ইন্সপেক্টর মো. রবিউল ইসলাম উপস্থিত থেকে লাশ উত্তোলন করে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি কারে ময়নাতদন্তের জন্যে মর্গে পাঠান।

এ বিষয়ে মামলার বাদী ফরিদ রহমানের সাথে কথা হলে তিনি জানান, মা মারা যাওয়ার পর আমাকে না জানিয়ে বাড়িতে নিয়ে মায়ের লাশ দাফন করা হয়। এতে আমার সন্দেহ হয়। যে কারণে আমি মামলা দায়ের করেছি।
অভিযোগের বিষয়ে অভিযুক্ত নারগিসের সাথে কথা হলে তিনি জানান, মায়ের জমি লিখে নিয়ে তার মাকে ভাই ফরিদ তাড়িয়ে দেন। এক বছর আমার মা আমার কাছে থেকে চিকিৎসা নেন। আমার মা দীর্ঘদিন ধরে কিডনি, ডায়াবেটিস, ফুসফুসের রোগসহ স্ট্রোক করেছিলেন। তিনি রোগগ্রস্ত হয়েই মারা যান।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা রবিউল ইসলাম বলেন, বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশে লাশ উত্তোলন করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের পর প্রকৃত তথ্য পাওয়া যাবে।
এ বিষয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার শেখ সালাউদ্দীন দিপু জানান, বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশে বৃদ্ধা জাহানারার লাশ উত্তোলনে খুলনার সিআইডিকে আইনি সহায়তা দেয়া হয়েছে।

Lab Scan