রামপালে আহত ছাত্রদল নেতা মহাকবিরের পাশে ড. শেখ ফরিদুল ইসলাম

0

রামপাল (বাগেরহাট) সংবাদদাতা॥ রামপালে আহত ছাত্রদল নেতা সরদার মহাকবিরকে দেখতে যান বাগেরহাট জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক লায়ন ডক্টর শেখ ফরিদুল ইসলাম। রবিবার বেলা ১২ টায় গৌরম্ভাস্থ মহাকবিরের বাড়িতে গিয়ে তার স্বাস্থ্যের খোঁজ খবর নেন। এ সময় তার পাশে কিছু সময় অবস্থান করেন। উল্লেখ্য শনিবার দুপুরে বাগেরহাটে জেলা বিএনপির সভা চলাকালে দুর্বৃত্তদের আঘাতে মহাকবিরসহ ১০/১২ জন আহত হন। পরে দলীয় নেতা-কর্মীদের সাথে দলীয় কার্যক্রম আরও সুসংহত করতে গৌরম্ভা বাজারে সাংগঠনিক আলোচনা সভা করেন। ওই সময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন, রামপাল উপজেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা কামাল পাটোয়ারী (হালিম), উপজেলা বিএনপির সাবেক দপ্তর সম্পাদক কাজী জাহিদুল ইসলাম, এস, এম আব্দুল্লাহ আজমি, এনামুল হক প্রিন্স, মাহাফুজুর রহমান চিক, মুজিবর জোয়ার্দার, মোল্লা কামরুজ্জামান বাবু, আমিরুল ইসলাম কুটি, তালুকদার বদিউজ্জামান মিনা, মাহ্ফুজ আকুন্জী, শেখ আব্বাস আলী মেম্বার, লিয়াকত আলী, যুবদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক মাসুদুর রহমান পিয়াল, সদস্য সচিব আলমগীর কবির বাচ্চু, সেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক কাজী অজিয়ার রহমান, সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক তরফদার মোতালেব হোসেন, তাতীদলের আহবায়ক সরদার বাকিবিল্লাহ, ছাত্রদলের আহবায়ক মোল্লা তরিকুল ইসলাম শোভন, শ্রমিক নেতা মারুফুজ্জামান, মোংলা উপজেলা বিএনপির মাহাবুবুর রহমান মানিক, পৌর যুবদলের সদস্য সচিব এম, এ কাসেম, পৌর যুবদলের আহবায়ক রিয়াদ হোসেন, সেচ্ছাসেবক দলের পৌর আহবায়ক পলাশ শেখসহ বিভিন্ন অংগ ও সহযোগী সংগঠনের বিপুল সংখ্যাক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। বাগেরহাট জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক লায়ন ডক্টর শেখ ফরিদুল ইসলামসহ ২৬ জন নেতা কর্মীকে শনিবার দুপুরে বাগেরহাট সদর মডেল থানা পুলিশ আটক করলে নেতা কর্মীদের মাঝে ব্যপার ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। জেলার শত শত নেতা কর্মী মডেল থানায় ভিড় করেন। নেতার মুক্তির দাবীতে রাত সাড়ে ১২ টা পর্যন্ত রুদ্ধশ্বাস অপেক্ষার পরে ফরিদুল ইসলামসহ সকালকে পুলিশ ছেড়ে দেয়। ওই রাতে রামপালের বিভিন্ন স্থানে মশাল মিছিল বের করে ছাত্রদলের কর্মীরা। নেতার মুক্তির খবরে বিএনপি ও অংগসগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্যে স্বস্তি ফিরে আসে।

Lab Scan