রামপালে আধিপত্য বিস্তারের মারপিটে আহত ১১

0

 

রামপাল (বাগেরহাট)সংবাদদাতা॥ বাগেরহাটের রামপালে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুপক্ষের সংঘর্ষে উভয়পক্ষের ১১ জন আহত হয়েছেন। আহতদের রামপাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে। এ ঘটনায় কোন পক্ষ রামপাল থানায় কোন অভিযোগ দাখিল করেনি।
আহতরা হলেন, আড়ুয়াডাঙ্গা গ্রামের মৃত মোস্তফা ফকিরের ছেলে ও ৬ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. গিয়াস উদ্দিন ফকির (৪৫), একই গ্রামের নূর মোহাম্মদের ছেলে আজাহার শেখ (৫৫), আশরাফ আলী শেখের ছেলে হাসমত শেখ (৫৪), বাচ্চু শেখের ছেলে কামরুল শেখ (৩০), আজাহার শেখের ছেলে রেজাউল শেখ (৩০), মুনসুর মোল্লার ছেলে রুহুল আমিন (৬৫), শাহাজান শেখের ছেলে শাহাবুদ্দিন (৩০) এবং প্রতিপক্ষের সাতপুকুরিয়া গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য ও তৈয়ব মাঝির ছেলে আনিস মাঝি (৪৮), ইউনুস মাঝি (৫২) ও হাসিব মাঝি (৩৫) এবং আনিস মাঝির ছেলে হুরাইরা মাঝি (১৮)। এদের মধ্যে গুরুতর আহত কামরুল শেখকে খুমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকিদের মধ্যে আনিস মাঝি, ইউনুস মাঝি ও হাসিবকে খুমেক হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।  জানা গেছে, পূর্ব থেকেই ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে উভয়পক্ষের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। উভয়পক্ষ আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত । রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে আড়ুয়াডাঙ্গা গ্রামে আ. হাকিমের ছেলে সাইফুল নামের এক যুবককে আটকে রাখা হয়েছে এমন অভিযোগ পান আনিস মাঝি। আনিস মাঝিসহ তার লোকজন সাইফুলকে উদ্ধারে ঠাকুর পুকুর পাড়ে যান। সেখানে গেলে উভয়ের মধ্যে মারপিটের ঘটনা ঘটছে। আনিস মাঝি অভিযোগ করে বলেন, সাইফুলকে উদ্ধারে গেলে মেম্বার গিয়াস ও তার লোকজন আমাদের ওপর হামলা করে। এ বিষয়ে ইউপি সদস্য গিয়াস উদ্দিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, গুজব ছড়িয়ে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে আমাদের ওপর হামলা করে সন্ত্রাসী আনিস বাহিনী।

Lab Scan