যৌতুকের দাবিতে জ¦লন্ত কাঠ দিয়ে মারধরের অভিযোগ, আদালতে গৃহবধূ

0

 

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোরে ৪ লাখ টাকা যৌতুকের দাবিতে মুসলিমা খাতুন নামে এক গৃহবধূকে জ্বলন্ত কাঠ দিয়ে মারধরের অভিযোগে গত ৪ সেপ্টেম্বর রোববার আদালতে একটি মামলা হয়েছে। স্বামীসহ চার জনকে আসামি করে মামলাটি করেছেন ভুক্তভোগী গৃহবধূ। তিনি সদর উপজেলার চুড়ামনকাটি গ্রামের জাকির হোসেনের মেয়ে। নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইবুন্যাল ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক গোলাম কবির অভিযোগ তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য সিআইডি পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন।
আসামিরা হলেন, সদর উপজেলার বানিয়ারগাতী গ্রামের বাসিন্দা মুসলিমা খাতুনের স্বামী আল আমিন, তার মা রহিমা বেগম, পিতা জাফর মোল্লা ও ভাই ইমরান হোসেন।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০২১ সালের ১২ জুলাই আল আমিনের সাথে মুসলিমার বিয়ে হয়। বিয়ের বেশ কিছুদিন পর উল্লিখিত আসামিরা মুসলিমার কাছে ৪ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। কিন্তু পিতা গরীব হওয়ায় যৌতুকের টাকা দিতে অপরাগতা প্রকাশ করেন মুসলিমা। এ কারণে তার ওপর শারীরিক নির্যাতন চালাতেন স্বামীসহ অন্য আসামিরা। এক পর্যায়ে গত ২৮ মে তারা তাকে মারধর করেন। চুলা থেকে জ্বলন্ত কাঠ এনে দিয়ে তার হাতে ও পিঠে এলোপাতাড়ি আঘাত করলে তিনি গুরুতর জখম হন। তার হাত, পা ও পিঠের বিভিন্ন স্থান পুড়ে যায়। খবর পেয়ে পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকায় স্থানান্তর করা হয়। সেখানে হাসপাতালে ১৫ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর কিছুটা সুস্থ হলে মুসলিমা চুড়ামনকাটিতে পিতার বাড়িতে চলে আসেন।

Lab Scan