যুক্তরাষ্ট্রের প্রাকৃতিক গ্যাস উত্তোলন বাড়ছেই

লোকসমাজ ডেস্ক।। দীর্ঘদিন ধরে প্রাকৃতিক গ্যাসের উত্তোলন ও মজুদ বাড়িয়েই চলেছে যুক্তরাষ্ট্র। সব মিলিয়ে চলতি বছরে দেশটির ড্রাই ন্যাচারাল গ্যাসের (ড্রাই গ্যাস) দৈনিক গড় উত্তোলন ৯ হাজার ২১০ কোটি ঘনফুটে দাঁড়াতে পারে, যা এ-যাবত্কালের সর্বোচ্চ। মার্কিন এনার্জি ইনফরমেশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (ইআইএ) সাম্প্রতিক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। খবর অয়েল প্রাইসডটকম।
ইআইএ তাদের শর্ট টার্ম এনার্জি আউটলুকের এ প্রতিবেদনে বলছে, গত বছরের তুলনায় এ বছর ড্রাই গ্যাসের উত্তোলন ১০ শতাংশ বাড়তে পারে। তবে আগামী বছর যুক্তরাষ্ট্রে জ্বালানি পণ্যটির উত্তোলন প্রবৃদ্ধি কমে আসবে। কারণ হিসেবে বলা হয়েছে, গ্যাসের বাজার নিম্নমুখী থাকায় এবং কূপ খনন কার্যক্রম বন্ধ থাকায় আগামী বছর উত্তোলন প্রবৃদ্ধিতে শ্লথগতি থাকবে।
ইআইএর প্রাক্কলন প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, চলতি বছরের তৃতীয় প্রান্তিক (জুলাই-আগস্ট) থেকে প্রাকৃতিক গ্যাসের বাজার নিম্নমুখী রয়েছে, যা ধীরে ধীরে আরো কমতির দিকে থাকবে। ফলে আগামী বছরের প্রথমার্ধ পর্যন্ত গ্যাসের খননকাজ কমে আসবে এবং তা পক্ষান্তরে দেশটির উত্তোলন প্রবৃদ্ধি কমিয়ে দেবে। সব মিলিয়ে আগামী বছর দেশটির দৈনিক উত্তোলন দাঁড়াতে পারে ৯ হাজার ৪৯০ কোটি ঘনফুটে।
আর চলতি বছর যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক বাজারে প্রাকৃতিক গ্যাসের দৈনিক সরবরাহ থাকবে ৮ হাজার ৫১০ কোটি ঘনফুট। আগামী বছর তা বেড়ে দাঁড়াবে ৮ হাজার ৬৪৫ কোটি ঘনফুটে।
অন্যদিকে চলতি বছর যুক্তরাষ্ট্র থেকে প্রাকৃতিক গ্যাসের দৈনিক নিট রফতানি দাঁড়াতে পারে ৪৮০ কোটি ঘনফুটের মতো। তবে আগামী বছর দেশটির নিট রফতানিতে বড় আকারের প্রবৃদ্ধির দেখা মিলতে পারে। ইআইএ বলছে, ২০২০ সালে যুক্তরাষ্ট্রের দৈনিক নিট রফতানি বেড়ে দাঁড়াতে পারে ৭৪০ কোটি ঘনফুটে, যেখানে ২০১৮ সালে দেশটির নিট রফতানি ছিল ২০০ কোটি ঘনফুটের মতো। সেই হিসাবে দুই বছরের ব্যবধানে আগামী বছর নিট রফতানি ২৭০ শতাংশ বাড়বে বলে মনে করছে ইআইএ।
প্রাকৃতিক গ্যাসের উত্তোলন ও রফতানির পাশাপাশি অভ্যন্তরীণ ব্যবহারের বিষয়েও তথ্য দিয়েছে মার্কিন সংস্থাটি। প্রতিবেদন অনুযায়ী, চলতি বছর যুক্তরাষ্ট্রে বিদ্যুৎ উৎপাদনে প্রাকৃতিক গ্যাসের হিস্যা বেড়ে দাঁড়াবে ৩৭ শতাংশে। আর আগামী বছরে এর পরিমাণ বেড়ে দাঁড়াবে ৩৮ শতাংশে। যেখানে ২০১৮ সালে হিস্যা ছিল ৩৪ শতাংশ। মূলত কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ উৎপাদন খরচ বাড়ার কারণে প্রাকৃতিক গ্যাসনির্ভর হয়ে পড়ছে দেশটির বিদ্যুৎ খাত। এ কারণে চলতি বছর যুক্তরাষ্ট্রে বিদ্যুৎ উৎপাদনে কয়লার ব্যবহার কমে হিস্যা থাকবে ২৫ শতাংশ। আর আগামী বছর তা আরো কমে দাঁড়াবে ২২ শতাংশে। যেখানে ২০১৮ সালে বিদ্যুৎ উৎপাদনে কয়লার হিস্যা ছিল ২৮ শতাংশ।

ভাগ