চিরচেনা দৃশ্য নেই দৌলতদিয়া ঘাটে

0

লোকসমাজ ডেস্ক॥ পদ্মা সেতু চালুর পর দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের প্রবেশদ্বার হিসেবে খ্যাত রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ও মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া নৌরুটে যাত্রী ও যানবাহন আগের থেকে অনেকটা কমেছে।যে নৌরুট দিয়ে প্রতিদিন লাখো যাত্রী ও কয়েক হাজার যানবাহন নদী পারাপার হতো সেই নৌরুট এখন অস্তিত্ব ও গুরুত্ব নিয়ে চিন্তায় আছেন এখানকার স্থানীয় লোকজন।
রবিবার সকাল ৮টা থেকে ১১টা পর্যন্ত দৌলতদিয়া ঘাটে অবস্থান করে দেখা যায়, ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে যানবাহনের যে সারি সৃষ্টি হত তা নেই। সপ্তাহখানেকের ব্যবধানে ঘাটের চিত্র পুরো উল্টো। যেখানে ফেরির জন্য মহাসড়কে দিনের পর দিন ঘণ্টার পর ঘণ্টা নদী পারের অপেক্ষায় থাকতো পণ্যবাহী ট্রাক ও যাত্রীবাহী বাস; সেই মহাসড়ক এখন ফাঁকা।
যেসব যানবাহন নদী পারের জন্য আসছে সেগুলো সরাসরি ফেরিতে উঠতে পারছে। অধিকাংশ ফেরিই ঘাটে প্রায় এক ঘণ্টা অপেক্ষা করে যানবাহন নিয়ে ঘাট ছেড়ে যাচ্ছে। আবার কোনো কোনো সময় যানবাহন না পেয়ে অর্ধেক জায়গা ফাঁকা রেখেই ঘাট ছাড়ছে ফেরি।
বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া ঘাট অফিস সূত্রে জানা যায়, পদ্মা সেতু উদ্বোধনের আগে ২০ জুন থেকে ২৫ জুন পর্যন্ত দৌলতদিয়া থেকে ফেরিগুলো বিভিন্ন যানবাহন নিয়ে পাটুরিয়া ঘাট গেছে যাত্রীবাহী বাস ৩২৩০টি, পণ্যবাহী ট্রাক ৭১৩৪টি, ছোট যানবাহন ৯৭৩০টি ও মোটরসাইকেল ৩৭৭টি এ নিয়ে মোট ২০ হাজার ৪৭১টি যানবাহন এবং ২৬ জুন থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত দৌলতদিয়া থেকে ফেরিগুলো বিভিন্ন যানবাহন নিয়ে পাটুরিয়া ঘাট গেছে যাত্রীবাহী বাস ১৯৮৫টি, পণ্যবাহী ট্রাক ৫৬৬৫টি, ছোট যানবাহন ৪৭৪৪টি এবং মোটরসাইকেল ৩৮৯টি।
গড়ে ৫ দিনে মোট যানবাহন কমে এসেছে ৭ হাজার ৬৮৮টি। এর মধ্যে ২৬ জুন থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত ৫ দিনে যাত্রীবাহী বাস কমে এসেছে ১২৪৫টি, পণ্যবাহী ট্রাক ১৪৬৯টি ও ছোট যানবাহন ৪ হাজার ৯৮৬ টি যানবাহন কমে এসেছে।
বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন (বিআইডব্লিউটিসি) দৌলতদিয়া ঘাট শাখার ব্যবস্থাপক প্রফুল্ল চৌহান বলেন, গত ২৫ জুন পদ্মা সেতু চালুর পর থেকে দৌলতদিয়া নৌরুটে ৫ দিনে যানবাহন কমে এসেছে ৭ হাজার ৬৮৮টি। তবে আমরা আশা করছি আর কয়েক দিন পর কোরবানির ঈদ, সেসময় গরুর ট্রাকসহ যানবাহনের একটু চাপ পড়বে। তবে আমরা আসন্ন কোরবানির ঈদের সকল ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি। আমরা চাই ঘরমুখো মানুষ যেন নির্বিঘ্নে বাড়ি ফিরতে পারে।
তিনি আরও বলেন, বর্তমানে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথে ২১টি ছোট-বড় ফেরির মধ্যে ১৭টি ফেরি চলাচল করছে। বাকি ৪টি ফেরির মধ্যে ১টি ইউটিলিটি ফেরি চন্দ্র মল্লিকা পাটুরিয়ার মধুমতি ভাসমান কারখানা ডকইয়ার্ডে মেরামতে রয়েছে এবং যানবাহন কম থাকায় ৩টি টানা (ডাম্প) ফেরি বসিয়ে রাখা হয়েছে।

Lab Scan