যশোর সদর ও কেশবপুর উপজেলার ২৫ ইউপি চেয়ারম্যানের শপথ গ্রহণ

0

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোর সদর ও কেশবপুর উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানরা শপথ নিয়েছেন। রবিবার জেলা প্রশাসকের সম্মেলনক্ষে এ শপথ অনুষ্ঠান হয়। যশোর স্থানীয় সরকারের উপ পরিচালক হুসাইন শওকতের সভাপতিত্বে জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান চেয়ারম্যানদের শপথবাক্য পাঠ করান। এ সময় নবনির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের দেশের স্বার্থে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান জানান জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান। এর আগে নির্বাচিত এই জনপ্রতিনিধিদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান তিনি। শপথ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রফিকুল হাসান, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুনিম লিংকন, কেশবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরাফাত হোসেন।
যশোর সদর উপজেলায় যারা শপথ গ্রহণ করেন তারা হলেন, হৈবতপুর ইউনিয়নের নির্বাচিত চেয়ারম্যান আবু সিদ্দিক, চুড়ামনকাটি ইউনিয়নে দাউদ হোসেন, আরবপুর ইউনিয়নে আরশাদ আলী, দেয়াড়া ইউনিয়নে আনিচুর রহমান, চাঁচড়া ইউনিয়নে শামীম রেজা, রামনগর ইউনিয়নে মাহমুদ হাসান লাইফ, নরেন্দ্রপুর ইউনিয়নে রাজু আহমেদ, বসুন্দিয়া ইউনিয়নে রিয়াজুল ইসলাম খান, ফতেপুর ইউনিয়নে সোহরাব হোসেন, কচুয়া ইউনিয়নে লুৎফর রহমান ধাবক, নওয়াপাড়া ইউনিয়নে হুমায়ুন কবীর তুহিন, ইছালী ইউনিয়নে ফেরদৌসী ইয়াসমিন, লেবুতলা ইউনিয়নে আলিমুজ্জামান মিলন, উপশহর ইউনিয়নে এহসানুর রহমান লিটু ও কাশিমপুর ইউনিয়নে শরিফুল ইসলাম।
কেশবপুর উপজেলায় ত্রিমোহিনী ইউনিয়নে নির্বাচিত চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান, সাগরদাঁড়ি ইউনিয়নে কাজী মোস্তাফিজুল ইসলাম মুক্ত, মজিদপুর ইউনিয়নে হুমায়ুন কবীর, বিদ্যানন্দকাঠি ইউনিয়নে আমজাদ হোসেন, মঙ্গলকোট ইউনিয়নে আব্দুল কাদের বিশ্বাস, পাজিয়া ইউনিয়নে জসিমউদ্দিন, সুফলাকাঠি ইউনিয়নে মুঞ্জুর রহমান, গৌরিঘোনা এস এম হাবিবুর রহমান, সাতবাড়িয়া ইউনিয়নে গোলাম মোস্তফা এবং হাসানপুর ইউনিয়নে তৌহিদুজ্জামান। পঞ্চম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে যশোরে সদর ও কেশবপুর উপজেলার ২৬ ইউনিয়নে গত ৫ জানুয়ারি ভোটগ্রহণ হয়। এর মধ্যে সদর উপজেলার ১৫ ইউনিয়নের মধ্যে ১১টিতে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী এবং চারটিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী জয়ী হয়েছিলেন। অন্যদিকে কেশবপুর উপজেলার ১১ ইউনিয়নের মধ্যে চারটিতে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ও ছয়টিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী জয়ী হয়েছিলেন। আর কেশবপুর সদর ইউনিয়ন পরিষদে নতুন মূলগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে নৌকার পক্ষে ব্যালটে সিল মারার অভিযোগে এ কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ স্থগিত করা হয়। পরে ৭ ফেব্রুয়ারি স্থগিত কেন্দ্রে ভোট গ্রহণে আলাউদ্দীন আলা বিজয়ী হয়েছেন। ফলে এই ইউনিয়নে গেজেট প্রকাশ না হওয়ার রবিবার শপথ হয়নি এই জনপ্রতিনিধির।

Lab Scan