যশোর জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার রাজেক আহমেদের ইন্তিকাল #অমিত ও নার্গিস বেগমের শোক

0

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোর জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার রাজেক আহমেদ হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন। আজ দুপুরে শহরের ঘোপসেন্ট্রাল রোডস্থ বাসায় তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে সহোদর শামীম হোসেন রনি তাকে চিকিৎসার জন্য যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান।

সেখানে বেলা ১২টা ৫৫ মিনিটে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজেউন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭২ বছর। তিনি স্ত্রী, ৩ পুত্র ও এক কন্যাসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তার স্ত্রী মিসেস শাহানা ইমাম উপশহর মহিলা ডিগ্রি কলেজের উপাধ্যক্ষ ছিলেন। রাজেক আহমেদ মুক্তিযুদ্ধকালীন মুজিববাহিনী বাঘারপাড়া থানার কমান্ডার ও জেলা ছাত্রলীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ছিলেন। তার মৃত্যুর সংবাদ শুনে মুক্তিযোদ্ধা এবং বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ বাসায় যান এবং পরিবারের শোকাহত সদস্যদের সান্ত্বনা দেন।

যশোর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যাপক নার্গিস বেগম মরহুমের বাসায় গেলে পরিবারের সদস্যরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। তিনি তাদের সান্ত্বনা দেন এবং গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। জেলা মহিলাদলের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা ফেরদৌসী বেগমসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ অধ্যাপক নার্গিস বেগমের সঙ্গে ছিলেন। রাজেক আহমেদকে দেখতে বাসায় যান যশোর জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান, পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ার্দ্দার, পৌর মেয়র হায়দান গণি খান পলাশ, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহীদুল ইসলাম মিলন, জাসদের কেন্দ্রীয় নেতা বীরমুক্তিযোদ্ধা অ্যাড. রবিউল আলম, সাবেক এমপি মনিরুল ইসলাম, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার মুজহারুল ইসলাম মন্টু, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. জাহাঙ্গীর হোসেন, সাবেক পৌর মেয়র বিএনপি নেতা মারুফুল ইসলাম, প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন, কোতয়ালি মডেল থানার ওসি তাজুল ইসলাম, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মো. ইয়াকুব কবীর, যশোর সংবাদপত্র পরিষদের সভাপতি ও দৈনিক কল্যাণের সম্পাদক একরাম-উদ-দ্দৌলা, সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক গ্রামের কাগজের সম্পাদক মবিনুল ইসলাম মবিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. খয়রাত হোসেন, জেলা বিএনপি’র আহ্বায়ক কমিটির সম্মানিত সদস্য একে শরফুদ্দৌলা ছোটলু, জেলা আওয়ামীলীগ নেতা হুমায়ুন কবীর কবু, জেলা মটর পার্টস টায়ার ও টিউব ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মো. শাহিনুর রহমান ঠান্ডু, আওয়ামী লীগ নেতা আফজাল হোসেন, কাউন্সিলর মোকছিমুল বারী অপু। বিকেল ৫টায় ঘোপ স্টাফ কোয়ার্টার ময়দানে রাজেক আহমেদকে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়।

বাদ এশা যশোর কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে মরহুমের নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। জানাযা শেষে ঘোপ সেন্ট্রাল রোডস্থ পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। জানাজায় যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সংসদ সদস্য শাহিন চাকলাদার, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন, পৌর মেয়র হায়দার গণি খান পলাশ, সাবেক মেয়র মারুফুল ইসলাম মারুফ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, বিএনপি, আওয়ামীলীগ, জাসদ, ওয়ার্কার্সপার্টি, সিপিবিসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ জানাজায় শরিক হন এবং তার কফিনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।  আগামী সোমবার বাদ আছর ঘোপ স্টাফ কোয়াটার জামে মসজিদ ও সেন্ট্রাল রোড জামে মসজিদে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে। মুক্তিযোদ্ধা রাজেক আহমেদের মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোকাহত স্বজনদের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করে বিবৃৃতি দিয়েছেন বিএনপির খুলনা বিভাগীয় ভারপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিত ও যশোর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যাপক নার্গিস বেগম। পৃথক শোকবার্তায় তারা মরহুমের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন।

Lab Scan