যশোরে হেরোইনের মামলায় কুখ্যাত বুদ্ধিবুড়ির ৫ বছর,তার সাবেক স্বামীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

0

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ১৮ বছর আগে হেরোইনসহ আটক যশোর শহরের এক সময়ের কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী রহিমা ওরফে বুদ্ধিবুুড়িকে ৫ বছর এবং তার সাবেক স্বামী কবির হোসেন ওরফে মুকুল হোসেনকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড  ও কারাদণ্ড – প্রদান করেছেন আদালত। বৃহস্পতিবার (১৮ মে) যশোরের অতিরিক্ত জেলা জজ চতুর্থ আদালতের বিচারক সুরাইয়া সাহাব এই দণ্ডাদেশ প্রদান করেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন এপিপি অ্যাড. আলতাফ হোসেন।
সাজাপ্রাপ্ত আসামি মুকুল হোসেন যশোর শহরের চাঁচড়া ইসমাইল কলোনির মৃত সাইদুর রহমানের ছেলে এবং বুদ্ধিবুড়ি একই এলাকার বাসিন্দা।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০০৫ সালের ২৮ জুন সন্ধ্যায় যশোর ডিবি পুলিশের এসআই শহিদুল ইসলাম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সদর উপজেলার রামনগরে অভিযান চালান। এ সময় তিনি সেখান থেকে মুকুল হোসেনকে ৩০ গ্রাম ও বুদ্ধিবুড়িকে ২০ গ্রাম হেরোইনসহ আটক করেন। এ ঘটনায় কোতয়ালি থানায় মামলা দায়ের করা হয়। একই বছরের ২৩ জুলাই কোতয়ালি থানা পুলিশের এসআই রিয়াজুল ইসলাম উল্লিখিত দুই জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।
মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় মুকুল হোসেনকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরও ৩ মাসের বিনাশ্রম  কারাদণ্ড এবং বুদ্ধিবুড়িকে পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড  ও পাঁচ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরও দুই মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেন বিচারক। রায় ঘোষণার সময় দুই আসামিই আদালতে উপস্থিত থাকায় তাদেরকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন বিচারক।
এদিকে বুদ্ধিবুড়ির স্বজনেরা জানিয়েছেন, আটকের সময় বুদ্ধিবুড়ি ও মুকুল হোসেন সম্পর্কে স্বামী-স্ত্রী ছিলেন। কিন্তু ১৫ বছর আগে বুদ্ধিবুড়ি বনিবনা না হওয়ায় তালাক দেন মুকুল হোসেনকে।

 

Lab Scan