যশোরে লাভলু হত্যাকাণ্ডে আসামি স্বর্ণকার কবিরের দুদিনের রিমান্ড মঞ্জুর

0

 

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোর শহরতলীর খোলাডাঙ্গার আলোচিত লাভলু হোসেন হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামি কবির হাওলাদার ওরফে স্বর্ণকার কবিরের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। ডিবি পুলিশের করা আবেদনের শুনানি শেষে রোববার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার দালাল তার ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এছাড়া এই মামলার অপর ৩ আসামির রিমান্ড আবেদন আদালতে নামঞ্জুর হয়েছে।
কবির হাওলাদার ওরফে স্বর্ণকার কবির পিরোজপুর সদরের হুগলা বেতকা এলাকার মৃত আব্দুল মালেক হাওলাদারের ছেলে। বর্তমানে তিনি যশোর শহরতলীর খোলাডাঙ্গার জনৈক রহমত আলীর বাড়ির ভাড়াটিয়া। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের এসআই আমিরুল আদালতে তার ৫ দিনের রিমান্ডের আবেদন জানিয়েছিলেন। এছাড়া আদালতে যাদের রিমান্ড নামঞ্জুর হয়েছে তারা হলেন, যশোর উপশহরের ২ নম্বর সেক্টর এলাকার লিয়াকত মোল্লার ছেলে রফিকুল ইসলাম (সন্ত্রাসী খোঁড়া কামরুলের ভগ্নিপতি), খোলাডাঙ্গা দক্ষিণপাড়ার কামরুজ্জামান ওরফে খোঁড়া কামরুলের স্ত্রী মেহেরুন খাতুন ও বোন শারমিনা খাতুন।
উল্লেখ্য, পাচারকারী চক্রের কাছ থেকে ছিনতাইকৃত স্বর্ণের বার বিক্রির টাকার ভাগবাটোয়ারা নিয়ে দ্বন্দ্বে গত
১০ জুন সকাল ছয়টার দিকে ৯ জুন দিবাগত রাতে খোলাডাঙ্গা দক্ষিণপাড়ায় সন্ত্রাসী খোঁড়া কামরুলের বাড়িতে খুন হন আফিল পোল্ট্রি ফার্মের ডিম ডেলিভারিম্যান লাভলু হোসেন। এ ঘটনায় হত্যার শিকার লাভলু হোসেনের পিতা আব্দুল মান্নান নিহতের কিশোর ছেলে সাকিল হোসেন ও সন্ত্রাসী খোঁড়া কামরুলসহ ৬ জনকে আসামি করে গত ১১ জুন রাতে কোতয়ালি থানায় একটি মামলা করে। ডিবি পুলিশ এর মধ্যে সাকিল হোসেনকে আটক করে। পরে এজাহারভুক্ত আরও ৪ আসামি রফিকুল ইসলাম, মেহেরুন খাতুন ও শারমিনা খাতুন জেলা ও দায়রা জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করলে বিচারক তাদেরকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। এ খবর পেয়ে তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে শ্যোন অ্যারেস্টের পর পাঁচদিন করে রিমান্ডের আবেদন জানান তদন্ত কর্মকর্তা। রোববার শুনানি শেষে আসামি রফিকুল ইসলামের ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর এবং অপর ৩ আসামির রিমান্ড নামঞ্জুর করেন আদালত।

Lab Scan