যশোরে বিএনপির বিরুদ্ধে অভিযানে নেমেছে পুলিশ

0

 

স্টাফ রিপোর্টার॥ যশোরে কেন্দ্রীয় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক ( খুলনা বিভাগ) অনিন্দ্য ইসলাম অমিতসহ দলের জেলা ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতাদের বাড়ি পুলিশ অভিযান চালিয়েছে। শনিবার সন্ধ্যায় হঠাৎ করে ডিবি ও কোতয়ালি থানা পুলিশের একটি দল কয়েকটি মাইক্রোবাসে করে দলের নেতা-কর্মীর বাড়িতে বাড়িতে অভিযান চালায়। সন্ধ্যা থেকে শুরু হওয়া অভিযান রাতভর অব্যাহত থাকে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সাদা রঙয়ের মাইক্রোবাসে করে পুলিশ এই অভিযানে নামে। প্রথমে তারা শহরের ঘোপ পিলুখান সড়কে কেন্দ্রীয় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক (খুলনা বিভাগ) অনিন্দ্য ইসলাম অমিতের বাস ভবনের সামনে যান। অভিযানে থাকা পুলিশ সদস্যরা তার বাস ভবনের গেটে ধাক্কাধাক্কি করে ভিতরে প্রবেশের চেষ্টা করে। এসময় পুলিশ সদস্যরা অনিন্দ্য ইসলাম অমিত বাস ভবনে আছেন কিনা সেটি জানার চেষ্টা করে।
সেখান থেকে অভিযানিক দল ধর্মতলা এলাকায় জেলা বিএনপির যুগ্ম-আহ্বায়ক দেলোয়ার হোসেন খোকনের বাস ভবনে যান। তার পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন,তিনি গত কয়েকদিন ধরে গুরুতর অসুস্থ। পুলিশের অভিযানের খবর পেয়ে তিনি গুরুতর অসুস্থ শরীর নিয়ে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান। দেলোয়ার হোসন খোকনের স্ত্রী জানান, পুলিশ এসে ঢাকায় কর্মস্থল থেকে বাড়ি ফেরা তার পুত্রের কাছে পিতার অবস্থান সম্পর্কে জানতে চায়। সে পুলিশকে জানায় তার পিতা (দেলোয়ার হোসেন খোকন) গুরুতর অসুস্থ। তখন পুলিশ সদস্যরা বলে সিসি ফুটেজে ঢাকার কর্মসূচিতে তোমার পিতাকে দেখা গেছে। বাসায় আসলে তোমার পিতাকে বলবে থানায় গিয়ে দেখা করে আসতে।
এছাড়া উপশহর ডি ব্লকস্থ জেলা বিএনপির সদস্য মিজানুর রহমান খানের বাড়িতেও একই ভাবে অভিযান চালায়। একইভাবে পুলিশ সদস্যরা জেলা বিএনপি ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের বাড়ি বাড়ি রাতভর গ্রেফাতারি অভিযান চালিয়েছে। অতর্কিত পুলিশের এমন অভিযানে বাড়িতে থাকা মহিলা ও শিশুরা ভীত সন্তস্ত্র হয়ে পড়ে।
এদিকে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সাদা রঙয়ের মাইক্রোবাস করে অভিযানে থাকা পুলিশ সদস্যদের মধ্যে ডিবি জ্যাকেট পরা ছিল। এর পাশাপাশি পোশাকধারী পুলিশ সদস্যরা ছিল। তাদের হাতে হকস্টিক,ক্রিকেট স্ট্যাম্প, বাঁশের লাঠি ছিল।
এ বিষয় যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ( ক্রাইম অ্যান্ড অপস্) বেলাল হোসাইনের সাথে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেই সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন।

Lab Scan