যশোরে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২

0

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোর-ঝিনাইদহ সড়কে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নারী শ্রমিকসহ দু’জন নিহত ও ৫ জন আহত হয়েছেন। আহতদের যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সকালে কাজে যাওয়ার পথে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
নিহতরা হচ্ছেন, ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার ফুলবাড়ি গ্রামের খোকনের ছেলে রাজন (২২) ও একই গ্রামের সুশীল দাসের স্ত্রী সুমিত্রা দাসী (৫৫)। বারোবাজার হাইওয়ে থানা পুলিশের এসআই কামরুজ্জামান জানিয়েছেন, গতকাল সকাল সাড়ে ৭টার দিকে রাজনসহ দু’জন মোটরসাইকেলে পাশাপাশি চালিয়ে যাচ্ছিল। তাদের ভেতর প্রতিযোগিতায় একজন আরেকজনের আগে উঠতে যায়। তখন মোটরসাইকেল দু’টি পাশাপাশি ধাক্কা লাগলে রাজন মোটরসাইকেলের উপর থেকে রাস্তার উপর পড়ে যান। এ সময় বিপরীত দিক থেকে একটি গাড়ি এসে রাজনকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়। অপরদিকে, সাতমাইল বাজারের পাশে আফিল ফার্মের সামনে বাসের চাপায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলে নিহত হন সুমিত্রা দাসী (৫৫)। এ ঘটনায় আরো ৫ জন আহত হয়েছেন। তারা সকলেই ভ্যানের যাত্রী ছিলেন। আহতরা হচ্ছেন, মষিহাটী গ্রামের বিশ্বনাথ দাসের স্ত্রীর উর্মিলা দাসী (৪৫), তার নাতি সবুজ কুমার দাসের মেয়ে বিনোদিনী (৫), রনো দাসের স্ত্রী মহারাণী দাসী (৪৫), সুধীর দাসের স্ত্রী রেণু দাস (৬০) ও ফুলবাড়ি গ্রামের ভ্যানচালক নিত্য দাস (৬৫)। আহতরা জানিয়েছেন, সকাল ৬টার দিকে ভ্যানযোগে তারা কাজে যাচ্ছিলেন। পথের মাঝে সাতমাইল বাজারের পাশে আফিল ফার্মের সামনে পৌঁছালে শাপলা পরিবহনের একটি বাস পিছন থেকে ভ্যানটিকে ধাক্কা দেয়। বাসের ধাক্কায় তারা ভ্যান থেকে রাস্তার উপর পড়ে যান। এ সময় বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলে নিহত হন সুমিত্রা দাসী। আহত হন ভ্যানের চালকসহ ৫ জন। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করেন। বারো বাজার হাইওয়ে থানার এসআই কামরুজ্জামান জানিয়েছেন, ঘাতক বাসটিকে আটক করা হয়েছে। পুলিশ দুটি লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্যে যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। ময়না তদন্ত শেষে লাশ দুটি স্বজনদের কাছে দেওয়া হয়।

Lab Scan