যশোরে চোর সিন্ডিকেটের ৩ সদস্য আটক : ১১টি বাইসাইকেল উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোরে বাইসাইকেল চোর সিন্ডিকেটের ৩ সদস্যকে গত মঙ্গলবার আটক করেছে ডিবি পুলিশ। এসময় তাদের কাছ থেকে চোরাই ১১টি বাইসাইকেল উদ্ধার করা হয়েছে। বুধবার আটক ৩ চোরকে আদালতে সোপর্দ করা হলে তারা ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মঞ্জুরুল ইসলাম তাদের জবানবন্দি গ্রহণ শেষে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন।
আটক চোর সিন্ডিকেটের ৩ সদস্য হচ্ছে, যশোর শহরের পুরাতন কসবা নিরিবিলি এলাকার চাঁনমিয়ার ছেলে সবুজ (২৮), সদর উপজেলার নরেন্দ্রপুর পূর্বপাড়ার নওয়াব আলীর ছেলে ওয়াদুদ দফাদার (৩৩) এবং আবাদ কচুয়া গ্রামের আব্দুল মালেক মোল্লার ছেলে হাসানুর রহমান (৩২)। বুধবার দুপুরে পুলিশ সুপার কার্যালয়ের কনফারেন্স রুমে বাইসাইকেলসহ চোর আটক সংক্রান্ত বিষয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফ দেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম। তিনি বলেন, বাঘারপাড়া উপজেলার জয়নগর গ্রামের আব্দুল গফ্ফার মোল্লার ছেলে দিনমজুর রিফাত হোসেন মুন্না শনিবার যশোর ডিসি অফিসে কাজে আসেন। তিনি তার বাইসাইকেলটি ডিসি অফিসের দক্ষিণ পাশে গাড়ি রাখার গ্যারেজে রেখে রঙের কাজ করতে থাকেন। কিন্তু দুপুরে খাওয়ার জন্য নিচে এলে দেখতে পান, তার সাইকেলসহ দুটি সাইকেল চুরি হয়ে গেছে। এ ঘটনায় তিনি কোতয়ালি থানায় একটি মামলা করেন। মামলাটি তদন্ত করছেন ডিবি পুলিশের এসআই সোলায়মান আক্কাস। গত মঙ্গলবার ডিবি পুলিশ ডিসি অফিস প্রাঙ্গণে অন্য একটি সাইকেল চুরির সময় সবুজেেক হাতেনাতে আটক করে। পরে আটক করা হয় ওয়াদুদ নামে আরো এক চোরকে। এরপর এই দুজনের স্বীকারোক্তিতে কচুয়া থেকে হাসানুরকে আটক এবং তার বাড়ি থেকে চোরাই ১১টি সাইকেল উদ্ধার করা হয়।

ভাগ