যশোরে চেক ডিজঅনারের পৃথক তিন মামলায় কারা ও অর্থদণ্ড ব্যবসায়ীর

0

 

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোরে চেক ডিজঅনারের পৃথক তিনটি মামলায় ব্যবসায়ী শেখ আব্দুল মজিদকে ১৫ মাসের কারাদণ্ড ও ২৫ লাখ টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করেছেন আদালত। রোববার যুগ্ম দায়রা ১ম আদালতে বিচারক আসিফ ইকবাল পৃথক এই রায় প্রদান করেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাদীপক্ষের আইনজীবী তাজ হোসেন তাজু।
সাজাপ্রাপ্ত শেখ আব্দুল মজিদ যশোর শহরের বেজপাড়ার মৃত শেখ ফারুক হোসেনের ছেলে।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, যশোর শহরের খালধার রোডের বাসিন্দা মৃত খোরশেদ আলীর ছেলে মামলার বাদী আজিজুল হক আসামি শেখ আব্দুল মজিদের পূর্ব পরিচিত। আসামি তার যশোর টেইলার্স, যশোর শাড়ি হাউজ, রহমান মানি চেঞ্জার ব্যবসা প্রসারের জন্য আজিজুল হকের কাছ থেকে এক মাসের মধ্যে পরিশোধের কথা বলে ২৫ লাখ টাকা ধার নেন। কিন্তু সময়মত টাকা পরিশোধে ব্যর্থ হয়ে শেখ আব্দুল মজিদ ২০১৮ সালের ৫ এপ্রিল ১০ লাখ টাকার দুটি ও ৫ লাখ টাকার একটি চেক দেন আজিজুল হককে। পরবর্তীতে চেক তিনটি নগদায়ন করতে ব্যাংকে গেলে শেখ আব্দুল মজিদের হিসাব নম্বরে পর্যাপ্ত টাকা না থাকায় ডিজঅনার করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। এ ব্যাপারে আজিজুল হক ব্যবসায়ী শেখ আব্দুল মজিদকে আসামি করে আদালতে চেক ডিজঅনারের পৃথক তিনটি মামলা করেন। অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আদালতের বিচারক পৃথক দুই মামলার রায়ে আসামি শেখ আব্দুল মজিদকে ৬ মাস করে কারাদ- ও ১০ লাখ টাকা করে অর্থদ- এবং অপর মামলার রায়ে ৩ মাসের কারাদ- ও ৫ লাখ টাকা অর্থদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন। সাজাপ্রাপ্ত শেখ আব্দুল মজিদ পলাতক রয়েছেন।

 

 

Lab Scan