যশোরে ইমরোজ হত্যা মামলার প্রধান আসামি পান্নুসহ দু জনের আত্মসমর্পণ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোর সদর উপজেলার ভাতুড়িয়া গ্রামের চাঞ্চল্যকর ইমরোজ হত্যাকাণ্ডের প্রায় একমাস পর প্রধান আসামি আলোচিত সেলিম রেজা পান্নুসহ দুজন আদালতে আত্মসমর্পণ করলে তাদেরকে জেলহাজতে পাঠানোর আদেশ দেয়া হয়েছে। চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক শাহাদত হোসেন তাদের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে প্রেরণের আদেশ দেন। গত বুধবার সেলিম রেজা পান্নুসহ দুজন আইনজীবীর মাধ্যমে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেছিলেন। সেলিম রেজা পান্নু ভাতুড়িয়া দাড়িপাড়ার মৃত দেলোয়ার হোসেনের ছেলে। অপর আসামির নাম আবু হেনা মোস্তফা কামাল সাগর। তিনি একই গ্রামের ইয়াসিন বিশ্বাসের ছেলে।
সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানায়, ভাতুড়িয়া গ্রামের নুর ইসলাম ওরফে নুরু মহুরির ছেলে ইমরোজ হোসেন খুন হওয়ার পর পালিয়ে ঢাকায় চলে যান সেলিম রেজা পান্নু ও আবু হেনা মোস্তফা কামাল সাগর। ঢাকায় তারা এই হত্যা মামলায় উচ্চ আদালত থেকে ৩ সপ্তাহের আগাম জামিন নিয়েছিলেন। কিন্তু উচ্চ আদালতের জামিনের মেয়াদ শেষ হওয়ায় তারা বুধবার যশোরের আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। সূত্র জানায়, ইমরোজ হত্যা মামলার দুই আসামির আত্মসমর্পণের খবর পেয়ে তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের এস আই শামীম হোসেন বৃহস্পতিবার আদালতে যান। এ সময় তিনি আদালতে তাদের ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। কিন্তু এদিন রিমান্ড আবেদনের শুনানি হয়নি।
গত ২৪ জুলাই দিনদুপুরে চাঁচড়ার ভাতুড়িয়া গ্রামের কালাবাঘা নামক স্থানে যুবক-যুবতীকে আটকে চাঁদাবাজিকে কেন্দ্র করে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হন ইমরোজ হোসেন। এ ঘটনায় নিহতের পিতা নুর ইসলাম বাদী হয়ে ১৩ জনের নাম উল্লেখ করে কোতয়ালী থানায় একটি মামলা করেছিলেন। সেলিম রেজা পান্নু এই মামলার প্রধান আসামি। পুলিশ ইতোমধ্যে এ মামলার আসামি মোস্ত, সজল, মোহাম্মদ আলী, রিংকু, স্বাধীন ও আব্দুর রহিমকে আটক করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে।

ভাগ