যশোরে অস্ত্র আইনে এক ব্যক্তির ৭ বছর কারাদণ্ড

0

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোরে অস্ত্র আইনের একটি মামলায় সোহরাব হোসেন নামে এক ব্যক্তিকে গতকাল সোমবার ৭ বছরের সশ্রম কারাদ- প্রদান করেছেন আদালত। একই মামলার অপর আসামি ফিরোজা বেগমের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাকে খালাস দেয়া হয়েছে। তিনি সোহরাব হোসেনের স্ত্রী। অতিরিক্তি দায়রা জজ আদালত ও স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল ১০-র বিচারক শিমুল কুমার বিশ্বাস এই রায় প্রদান করেন।
সাজাপ্রাপ্ত সোহরাব হোসেন ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার সাকো মহনপুর গ্রামের মৃত এরাদশ মন্ডলের ছেলে।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০০৯ সালের ৩১ জুলাই একটি ডাকাতি মামলার আসামি সোহরাব হোসেনকে আটকের জন্য যশোর শহরের বেজপাড়া চোপদারপাড়ার একটি বাসায় অভিযান চালান নড়াইল ডিবি পুলিশের তৎকালীন এসআই আবুল খায়ের। এ সময় ওই বাসা থেকে সোহরাব হোসেন ও তার স্ত্রী ফিরোজা বেগমকে আটক করা হয়। পরে আটক দম্পতির স্বীকারোক্তিতে তাদের ঘর থেকে ১৩ রাউন্ড বন্দুকের গুলি ও বিস্ফোরকদ্রব্য উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় এসআই আবুল খায়ের আটক দম্পতির বিরুদ্ধে অস্ত্র ও বিস্ফোরক আইনে যশোর কোতয়ালি থানায় মামলা করেন। এরপর মামলার তদন্ত শেষে আটক দম্পতিকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন কর্মকর্তা এসআই কবিরুল ইসলাম। এ মামলায় আসামি সোহরাব হোসেনের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় অস্ত্র আইনে ১৯(চ) ধারায় তাকে ৭ বছরের সশ্রম কারাদ-ের আদেশ দিয়েছেন আদালতের বিচারক। তবে তার স্ত্রী ফিরোজা বেগমের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাকে খালাস দেয়া হয়েছে।

Lab Scan