যশোরের পুরাতন কসবার আলম হত্যা মামলায় ৭ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট

0

 

 

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোর শহরের পুরতান কসবা গোলামপট্টির আলমগীর হোসেন আলম হত্যা মামলায় ৭ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেছে পুলিশ। এছাড়া হত্যাকাণ্ডে সম্পৃক্ততা না পাওয়ায় জাতীয় দলের সাবেক ফুটবলার পিয়ারুজ্জামান পিরুসহ ৪ জনের অব্যহতির আবেদন জানানো হয়েছে চার্জশিটে। তদন্ত শেষে আদালতে এই চার্জশিট দাখিল করেন কোতয়ালি থানা পুলিশের এসআই সালাউদ্দিন খান।
চার্জশিটে অভিযুক্তরা হলেন যশোর শহরের পুরতান কসবা কাজীপাড়ার শহিদুলের (কাঠমিস্ত্রি) ছেলে সোহান হোসেন, ফারুকের ছেলে আজিজুর রহমান ওরফে আইজুল, মৃত লোকমান শেখের ছেলে বাবলু শেখ, গোলামপট্টির শেখ রবিউল ইসলাম রবির ছেলে ইমরুল কায়েস রুমন, মৃত বাশার মিয়ার ছেলে আসাদুজ্জামান বাবু ও পুরতান কসবা ব্রিজের দক্ষিণ পাশের চঞ্চলের বাড়ির ভাড়াটিয়া মৃত শেখ সুলতানের ছেলে শাওন আহম্মেদ।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, আলম ইজিবাইকের ব্যবসার সাথে জড়িত ছিলেন। তার ভাই কোরবান আলী পচাকে ২০২১ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি সন্ত্রাসীরা কুপিয়ে হত্যা করে। এ হত্যা মামলা প্রত্যাহার করে নেয়ার জন্য আসামিরা নিহতের পরিবারকে ভয়ভীতি প্রদর্শন ও চাপ সৃষ্টি করে আসছিলো। কিন্তু মামলা প্রত্যাহার না করায় আসামিরা ক্ষুব্ধ হয়। এ ঘটনার জের ধরে গত ২৪ মার্চ বিকেলে পুরাতন কসবা গোলাম পট্টিতে সন্ত্রাসীরা ছুরিকাঘাতে গুরুতর জখম করে নিহত কোরবান আলীর ভাই আলমকে। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ২৭ মার্চ ভোরে আলম মারা যান। এ ঘটনায় নিহতের ভাই মুরাদ কোতয়ালি থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। এ মামলার তদন্ত শেষে উল্লিখিতদের অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে পুলিশ। এছাড়া হত্যার সাথে সম্পৃক্ততা না পাওয়ায় আসামি জাতীয় দলের সাবেক ফুটবলার পিয়ারুজ্জামান পিরু, আমিরুল, সোহাগ ও রনি ওরফে কাজী হায়াতুজ্জামান রাজিবের অব্যহতির আবেদন জানানো হয়েছে।

 

 

 

Lab Scan