মোল্লাপাড়ার সোহাগ হত্যায় জড়িত দুর্ধর্ষ এক সন্ত্রাসীকে খুঁজছে পুলিশ, মুখ খোলেনি রাকিব

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোর শহরের মোল্লাপাড়া আমতলার কলেজছাত্র সোহানুর রহমান সোহাগ খুনের সাথে এলাকার দুর্ধর্ষ এক সন্ত্রাসী জড়িত বলে পুলিশ সন্দেহ করছে। এ কারণে তাকে খুঁজছে পুলিশ। অপরদিকে হত্যা মামলার প্রধান আসামি রাকিব পুলিশ রিমান্ডে মুখ খোলেনি। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে সে সোহাগ খুনের সাথে জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পুলিশের একজন কর্মকর্তা জানান, কলেজছাত্র সোহাগ খুনের সাথে মোল্লাপাড়া আমতলা এলাকার দুর্ধর্ষ এক সন্ত্রাসী জড়িত ছিলো বলে তারা তথ্য পেয়েছেন। কিন্তু সে মামলার এজাহারভুক্ত আসামি নয়। সোহাগ খুনের পর সে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে গিয়েছিলো। তবে মামলায় তার নাম না আসার পর সে ফের এলাকায় ফিরে এসেছে বলে তথ্য পাওয়া গেছে। সূত্র জানায়, মোল্লাপাড়া আমতলার বিশেষ একটি মহল দুর্ধর্ষ ওই সন্ত্রাসীকে রক্ষার জন্য তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। সোহাগের লাশ উদ্ধারের পর তার পরিবারকে নিজ কব্জায় রাখতে সক্ষম হয় বিশেষ ওই মহলটি। কব্জায় নিয়ে নিহতের পরিবারকে নানাভাবে প্রভাবিত করার কারণে খুনের সাথে জড়িত দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসীর নাম মামলায় আসেনি বলে মনে করা হচ্ছে।
এদিকে এলাকার একাধিক ব্যক্তির অভিযোগ, ইতঃপূর্বে বোমা বানাতে গিয়ে জখম হওয়া ওই সন্ত্রাসী খুন, ছিনতাই ও মাদক কারবারসহ বহু অপরাধের সাথে জড়িত। একাধিক মামলার আসামি এই সন্ত্রাসী কলেজছাত্র সোহাগ খুনের সাথে জড়িত। কিন্তু সে ও তার পরিবারের ভয়ে এলাকার কেউ এ বিষয়ে মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছেন না। তবে তাকে আটক করে সঠিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারলে সোহাগ খুনের রহস্য উদ্ঘাটন হতে পারে বলে মনে করেন অনেকে। অপরদিকে রিমান্ডে সোহাগ হত্যা মামলা প্রধান আসামি রাকিব পুলিশের কাছে মুখ খোলেনি। তদন্ত কর্মকর্তা কোতয়ালি থানা পুলিশের এসআই মিজানুর রহমান জানান, জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে রাকিব খুনের সাথে জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করেছে। তবে তাকে আরও জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। আদালতের অনুমতি সাপেক্ষে গত বৃহস্পতিবার বিকেলে রাকিবকে ১ দিনের রিমান্ডে নেয় পুলিশ। আজ তাকে আদালতে সোপর্দ করা হবে। রাকিব মোল্লাপাড়া আমতলার মাইছো সিদ্দিকের ছেলে। উল্লেখ্য, রাকিবের সাবেক স্ত্রী অনন্যার সোহাগের প্রেমজ সম্পর্ক সাথে ছিলো। কিন্তু এ বিষয়টি মেনে নিতে পারেনি রাকিব। এর জের ধরে সোহাগকে খুন করা হয়েছে বলে প্রচার রয়েছে। তাছাড়া এই হত্যা মামলায় অনন্যাকেও সাক্ষী করায় তার সাথে সোহাগের যে প্রেমজ সম্পর্ক ছিলো তা আরও পরিষ্কার অনেকের কাছে।

ভাগ