মোরেলগঞ্জে দলিল লেখক ও সাব-রেজিস্ট্রারের বিরুদ্ধে ত্রুটিপূর্ণ জমি রেজিস্ট্রি করার অভিযোগ

0

শামীম আহসান মল্লিক, মোরেলগঞ্জ (বাগেরহাট) ॥ মোরেলগঞ্জে অর্থের বিনিময়ে ত্রুটিপূর্ণ দলিল রেজিস্ট্রি করার অভিযোগে দলিল লেখক ও সাব-রেজিস্ট্রারের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন উপজেলার কিসমত বৌলপুর গ্রামের উজ্জ্বল কুমার মজুমদার।  মঙ্গলবার (২ মে) সন্ধ্যায় উপজেলা প্রেস ক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।
উজ্জ্বল কুমার সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলেন, তিনি গত বছর ২২ ডিসেম্বর ২৫ শতাংশ জমি কবলা রেজিস্ট্রি করার উদ্দেশ্য দলিল লেখক সুমনের সঙ্গে সাব-রেজিস্ট্রারের কার্যালয়ে যান। সাব-রেজিস্ট্রার তন্ময় কুমার ম-ল কাগজে ভুল আছে যা সংশোধন করা প্রয়োজন ও নামপত্তন করা হয়নি বলে ফিরিয়ে দেন। কিছুদিন পরে দলিল লেখক সুমন মোবাইল ফোনে ১ লাখ টাকা খরচ দিলে রেজিস্ট্রি করে দেওয়া যাবে বলে জানান। পরবর্তীতে তার কথামতো মঙ্গলবার (২ মে) সুমনকে দাতা ও পরিচিত ব্যক্তিবর্গের সামনে নিরুপায় হয়ে নগদ ৮০ হাজার টাকা দিলে ২৫ শতাংশ জমি যার দাতা কমলেশ চক্রবর্তী এবং মায়া চক্রবর্তী ৪ লাখ টাকা জমির
মূল্যে রেজিস্ট্রি হয়। যার দলিল নং ২০৩৫ তারিখ : ২/৫/২০২৩। দাবিকৃত বাকি ২০ হাজার টাকার জন্য ওই দলিলের টিকিট আটকে রাখেন দলিল লেখক সুমন। পরবর্তীতে তার পরিচিত স্থানীয় এক ইউপি সদস্যকে জানালে তার হস্তক্ষেপে ওই টিকিট ফেরত দেন সুমন। পরে দলিল লেখক সুমন বাকি ২০ হাজার টাকার জন্য উজ্জ্বল কুমারকে চাপ দেন। তিনি তখন বাকি টাকা দিতে অস্বীকার করলে সকলের উপস্থিতিতে তাকে মারধর করেন সুমন। এই ঘটনা উজ্জ্বল কুমার উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক মোজামকে অবহিত করেন। এ ব্যাপারে দলিল লেখক সুমন মারধরের কথা অস্বীকার করেন এবং ৪০ হাজার টাকা নেওয়ার কথা স্বীকার করেন।
বিষয়টি সাব রেস্ট্রিার তন্মায় কুমার ম-লের কাছে জানতে চাইলে তিনি নামজারি ছাড়া ত্রুটিপূর্ণ ফেরত দেওয়ার দলিল কি ভাবে রেজিস্ট্রি করে দিলেন তার কোনও সদুত্তর দিতে পারেননি। তবে বলেন, ‘আমার কাছে একটি লিখিত অভিযোগ দিলে দলিল লেখক সুমনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবো। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম তারেক সুলতান বলেন, বিষয়টি খুব দুঃখজনক লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। জেলা রেজিস্ট্রার মনিরুল হাসান বলেন, ‘আমাকে কেউ কিছু জানায়নি, তবে অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

 

Lab Scan