মোরেলগঞ্জে কলেজ অধ্যক্ষের সংবাদ সম্মেলন

0

 

মোরেলগঞ্জ সংবাদদাতা॥ বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ ‘মিথ্যা’ অভিযোগ ও অপপ্রচারের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন উপজেলার প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত সেতারা আব্বাস টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিজনেস ম্যানেজমেন্ট কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ জেসমিন আক্তার। বৃহস্পতিবার (৪ মে ) দুপুরে মোরেলগঞ্জ উপজেলা প্রেসক্লাব কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।
এসএসসি ( ভোকেশনাল) পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে ফরম ফিলআপে অতিরিক্ত অর্থ ও প্রবেশপত্র বিতরণে অর্থ গ্রহণের ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি এসএম তারেক সুলতান বরাবর গত ২৯ এপ্রিল ও ৩ মে কতিপয় শিক্ষার্থী অভিযোগ দায়ের করে। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা, কাল্পনিক ও বানোয়াট বলে সংবাদ সম্মেলনে দাবি করেন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ।
লিখিত বক্তব্যে তিনি জানান, ২০২৩ সালে এ প্রতিষ্ঠানে এসএসসি (ভোকেশনাল) শিক্ষাক্রমে মোট ৫৮ জন শিক্ষার্থী ফরম ফিলআপ করে। বোর্ডের নির্ধারিত ফি ১,১৫৫ টাকা, বার্ষিক বেতন ১০০ টাকা হারে ১২০০ টাকা ও নবায়ন ও সেসন চার্জ ৫২৫ টাকা সর্বমোট ২,৮৮০ টাকা ধার্য করে শিক্ষার্থীদের নোটিস দেয়া হয়। পরবর্তীতে তাদের দাবির প্রেক্ষিতে ৫০০ টাকা মওকুফ করে সবাই ১,৫০৫ টাকা হারে আদায় করে এ প্রতিষ্ঠানের ব্যাংক হিসেবে ( সোনালী ব্যাংক, মোরেলগঞ্জ শাখা) জমা করা হয়েছে। পরীক্ষা কেন্দ্র এসিলাহা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় হওয়ায় ৫৬ জন নিয়মিত শিক্ষার্থীর বিপরীতে ৮২৫ টাকা হারে ৪৬,২০০ টাকা এবং ৬৫০ টাকা হারে অনিয়মিত ২ জনের বিপরীতে ১,৩০০ টাকা সর্বমোট ৪৭,৫০০ টাকা কেন্দ্র ফি বাবদ কেন্দ্র সচিবকে প্রদান করা হবে। সে কারণে বোর্ডের নির্ধারিত কেন্দ্র ফি ৮২৫ টাকা ধার্য করা হয়। তাই প্রবেশপত্র গ্রহণের সময় তাদের কাছ থেকে কেন্দ্র ফি আদায় করা হয়। অধিকাংশ শিক্ষার্থী প্রবেশপত্র গ্রহণ করলেও কিছু সংখ্যক ষড়যন্ত্রকারী প্রতিষ্ঠান বিরোধী লোকের কুপরামর্শে কতিপয় শিক্ষার্থী উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে অহেতুক অভিযোগ দাখিল করে। প্রকৃতপক্ষে নির্ধারিত ফি ছাড়া কোনরূপ অর্থ আদায় করা হয়নি।

 

 

Lab Scan