মাদ্রাসা সুপারের বিরুদ্ধে সাংবাদিকের ২০ লাখ টাকার ‘চেক ডিজঅনারের’ মামলা

মোংলা প্রতিনিধি ॥ মোংলার ঝনঝনিয়া সিদ্দিকিয়া দাখিল মাদ্রাসার সুপার মো. অহিদুজ্জামানের বিরুদ্ধে হাফিজুর রহমান নামে এক সাংবাদিক ২০ লাখ টাকার চেক ডিজঅনারের মামলা করেছেন। এরপর ‘দৈনিক আমার সংবাদ’-এর মোংলা প্রতিনিধি হাফিজুর রহমানকে ওই মাদ্রাসা সুপার ফোন করে হত্যার হুমকি দিয়েছেন বলে তিনি দাবি করেছেন। ওই সাংবাদিক বলেন, শুক্রবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) রাত ১১টা ৩৬ মিনিটে মাদ্রাসা সুপার তাকে ফোন করেন। তিনি বলেন, ‘একটু সাবধানে থাকিস, তোর জন্য একটা কার্তুজ (গুলি) খরচ করবো, তোর আব্বা আমি…।’
এ ঘটনায় শনিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) মোংলা থানায় জিডি (সাধারণ ডায়েরি) করেছেন সাংবাদিক হাফিজুর। এ প্রসঙ্গে মোংলা থানার ডিউটি অফিসার এসআই বিশ্বজিৎ মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘বিষয়টি খুবই স্পর্শকাতর। আমরা তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেবো।’ জিডিতে বলা আছে, হাফিজুর রহমান তার পৈত্রিক ব্যবসা থেকে মাদ্রাসার সুপারকে ২০ লাখ টাকা ধার দেন। পাওনা টাকার অনুকূলে মাদ্রাসা সুপার তার সোনালী ব্যাংক রামপাল শাখায় ৪৩৮৭৯ এর হিসাব (অ্যাকাউন্ট) এর চেকে (নম্বর ৪০৯১৯৭৪) ২৯ জানুয়ারি ২০ লাখ টাকা প্রদান করেন। পরে গত ৫ ফেব্রুয়ারি ওই চেক নিয়ে ব্যাংকে গেলে ওই অ্যাকাউন্টে যথেষ্ট পরিমাণ টাকা না থাকায় ব্যাংক কর্তৃপক্ষ চেকটি ডিজঅনার করে। এ বিষয়ে আইনজীবীর মাধ্যমে মাদ্রাসার সুপারকে কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠান হাফিজুর। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে শুক্রবার রাতে তাকে ফোন করে হত্যার হুমকি ও গালিগালাজ করেন। হাফিজুর বলেন, ‘পাওনা টাকা না পেয়ে আইনের আশ্রয় নিয়েছি। এটা তো আমার অপরাধ না। কিন্তু এজন্য একজন মাদ্রাসার সুপার কীভাবে গুলি করে হত্যার হুমকি দেয়। সে অস্ত্র কোথায় পেলো? আমি এ ঘটনায় আমার পরিবার নিয়ে চরম শঙ্কায় আছি।’ এ বিষয়ে জানতে মাদ্রাসার সুপার অহিদুজ্জামানকে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

ভাগ