মহানবী স.-কে নিয়ে ভারতে কটূক্তির প্রতিবাদে বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ সমাবেশ

0

 

লোকসমাজ ডেস্ক ॥ মহানবী হজরত মুহাম্মদ স.-কে নিয়ে ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির দুই নেতার কটূক্তির প্রতিবাদে শুক্রবার বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ সমাবেশ হয়েছে। আমাদের সংবাদদাতাদের পাঠানো তথ্য নিয়ে একটি ডেস্ক রিপোর্ট….
সাতক্ষীরা সংবাদদাতা জানান, সম্প্রতি ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির মুখপাত্র নূপুর শর্মা ও মিডিয়া সেল প্রধান নবীন জিন্দাল কর্তৃক বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ স. এবং আয়েশা সিদ্দিকা রা. কে নিয়ে অশ্লীল ও অবমাননাকর মন্তব্য করার প্রতিবাদে সাতক্ষীরায় প্রতিবাদ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ সাতক্ষীরা জেলা শাখার আয়োজনে শুক্রবার বাদ জুম্মা শহরের শহীদ আব্দুর রাজ্জাক পার্ক থেকে প্রতিবাদ মিছিলটি বের হয়। মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে আবারো একই স্থানে গিয়ে শেষ হয়। সাতক্ষীরা জেলা শহরের বিভিন্ন মসজিদ থেকে মুসল্লিরা খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে আব্দুর রাজ্জাক পার্কে উপস্থিত হন। এসময় শহীদ আব্দুর রাজ্জাক পার্কটি বিশাল জনসমুদ্রে পরিণত হয়।
পরে সেখানে বিশাল এক প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় । সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ সাতক্ষীরা জেলা শাখার সভাপতি মোহাদ্দিস মোস্তফা সামছুজ্জামান, মাও. নেছার উদ্দিন, মাও. আব্দুল হামিদ প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন, ইসলামী যুব আন্দোলন বাংলাদেশ সাতক্ষীরার সভাপতি মোবাশ্বেরুল ইসলাম ত্বকি।
বক্তারা এ সময় ভারতের উগ্র সাম্প্রদায়িক ক্ষমতাসীন বিজেপির মুখপাত্র নূপূুর শর্মা ও মিডিয়া সেল প্রধান নবীন জিন্দালকে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোর দাবি জানান এবং অবিলম্বে কুরুচিপূর্ণ এমন মন্তব্যের জন্য বিজেপি সরকারকে মুসলিম উম্মাহর কাছে ক্ষমা প্রার্থনার আহ্বান জানান।
পাইকগাছা (খুলনা) সংবাদদাতা জানান, ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির দু নেতা মহানবী হযরত মুহাম্মদ স. কে নিয়ে কটূক্তি করার প্রতিবাদে পাইকগাছায় বিক্ষোভ ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে পৌরসভা ইমাম পরিষদের উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়। মিছিল শেষে পৌরসভা চত্বরে প্রতিবাদ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন পৌর ইমাম পরিষদের সভাপতি হাফেজ মাওলানা মো. শহিদুল ইসলাম। সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আব্দুল কাদিরের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, মাওলানা রাইসুল ইসলাম, গাজী জুনায়েদুর রহমান, মো.শামসুদ্দিন, মো. আবু সাদেক, সাইদুল ইসলাম, ইব্রাহিম খলিল, গোলাম রাব্বানী, মো. আব্দুল্লাহ, আব্দুল মালেক, আব্দুস সালাম, মো. ওলিউল্যাহ, মনিরুল ইসলাম, মুজিবুর রহমান, আব্দুল হাই, হারুন অর-রশিদ, আব্দুল মান্নান, আব্দুল হক প্রমুখ।
মোরেলগঞ্জ (বাগেরহাট) সংবাদদাতা জানান, মহানবী হযরত মুহাম্মদ স. কে নিয়ে কটূক্তির প্রতিবাদে মোরেলগঞ্জে বিশাল বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছেন ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা।
‘বিশ্ব নবীর অপমান-সইবে না আর মুসলমান’ এ প্রতিপাদ্যে শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে মুসলিম ঐক্য ব্যানারে মোরেলগঞ্জ পৌরসভার বিভিন্ন মসজিদের খতিব, ইমাম, মুয়াজ্জিনসহ দলমত নির্বিশেষে আপামর ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা এ বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ মিছিলের আয়োজন করে। মোরেলগঞ্জ কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ চত্বর থেকে এ বিক্ষোভ মিছিলটি পৌরসভার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে কাপুড়িয়াপট্টিতে গিয়ে এক পথসভা অনুষ্ঠিত হয়।
সংক্ষিপ্ত এ পথসভায় বক্তব্য রাখেন মোরেলগঞ্জ কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খতিব হাফেজ মতিউর রহমান এবং উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক অ্যাড.তাজিনুর রহমান পলাশ।
বক্তারা বলেন, ক্ষমতাসীন বিজেপির মুখপাত্র নূপুর শর্মা ও নবীন কুমার জিন্দাল মহানবী হজরত মুহাম্মদ স. ও তার স্ত্রী হযরত আয়েশা রা. কে নিয়ে কটূক্তি করে ক্ষমার অযোগ্য অপরাধ করেছেন। অবিলম্বে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্যের জন্য অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানসহ মুসলিম উম্মাহর কাছে তাদের ক্ষমা চাইতে হবে। না হলে কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।
ঝিকরগাছা (যশোর) সংবাদদাতা জানান, সম্প্রতি ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির মুখপাত্র নুপুর শর্মা ও মিডিয়া সেল প্রধান নবীন জিন্দাল কর্তৃক বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ স. এবং আয়েশা সিদ্দিকা রা. কে নিয়ে অশ্লীল ও অবমাননাকর মন্তব্য করার প্রতিবাদে ঝিকরগাছায় ইমাম পরিষদ ও উপজেলা কওমী ছাত্র পরিষদের উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। তাছাড়া আশেকে রাসুল স. এর ব্যনারে বিকেলে আরও একটি প্রতিবাদ সমাবেশ হয়।
শুক্রবার বাদজুমা ঝিকরগাছা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়ে ঝিকরগাছা বাজারের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে বাসস্ট্যান্ডে গিয়ে মানববন্ধন হয়। পরে পৌর সদরের বিভিন্ন মসজিদের মুসল্লিরা মিছিল সহকারে এসে মানববন্ধনে অংশ গ্রহণ করেন। মানববন্ধন শেষে বাসস্ট্যান্ডে এক সমাবেশে হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন, উপজেলা ইমাম পরিষদের সভাপতি কাটাখাল জামে মসজিদের ইমাম হাফেজ মাওলানা আব্দুল্ল্যাহ। এসময় বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব মুফতি আকবার হুসাইন, বাসস্ট্যান্ড জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব মাওলানা আব্দুস শুকুরসহ ইমাম পরিষদ, উপজেলা কওমি ছাত্র পরিষদের নেতৃবৃন্দ। একই দিন বিকেলে একই প্রতিবাদে আশেকে রাসুল স. এর ব্যানারে বিক্ষোভ মিছিল শেষে নিশানা মার্কেটের সামনে সমাবেশ করেছে নেতৃবৃন্দ।
রামপাল (বাগেরহাট) সংবাদদাতা জানান, ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির দু নেতা মহানবী হযরত মুহাম্মদ স. কে নিয়ে কটূক্তি করার প্রতিবাদে শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে রামপাল উপজেলাব্যাপী প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে। অবিলম্বে কটূক্তিকারীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান না করা হলে কঠোর কর্মসূচি ও ভারতীয় পণ্য বর্জনের আহ্বান জানানো হয়।
উপজেলার পেড়িখালী বাজারের প্রতিবাদ সমাবেশে নাজমুল হুদার পরিচালনা বক্তব্য দেন বাজার জামে মসজিদের পেশ ইমাম মো. মাসুদুর রহমান, সিকিরডাঙ্গা জামে মসজিদের পেশ ইমাম মুফতি খলিলুর রহমান, স্কুল জামে মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা জাকারিয়া হুসাইন, উলুবুনিয়া জামে মসজিদের পেশ ইমাম আবু তাহের প্রমুখ। অনুরূপভাবে মল্লিকেরবেড় ইউনিয়ন, ভোজপাতিয়া ইউনিয়ন, বাঁশতলী গিলাতলা, রাজনগর ইউনিয়ন ও গৌরম্ভা ইউনিয়নে প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল করেছেন ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা।
ফুলতলা (খুলনা) অফিস জানায়, মহানবী স. কে নিয়ে ভারতের ক্ষমতাশীন বিজেপির মুখমাত্র নূপুর শর্মা ও নাভিন জিন্দাল কর্তৃক কটূক্তি করার প্রতিবাদে বাদ জুম্মা সর্বস্তরের মুসল্লিদের অংশগ্রহণে ফুলতলায় এক বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। তবে পুলিশি বাধার মুখে মসজিদ চত্বরে মিছিলটি শেষ করতে হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান এটিএম গাউসুল আযম হাদী, ফুলতলা কেন্দ্রীয় মসজিদের খতিব মুফতি ফোরকান আহমেদ কাসেমী, মাওলানা মাহবুবুর রহমান, মোল্যা মনিরুল ইসলাম, শেখ আকতার হোসেন প্রমুখ।
শালিখা (মাগুরা) সংবাদদাতা জানান, বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ স. কে নিয়ে ভারতে বিজেপি নেতা ও নেত্রীর কটূক্তির প্রতিবাদে মাগুরায় মিছিল সমাবেশ করেছেন ধর্মপ্রাণ মুসল্লীরা।
গতকাল শুক্রবার আসরের নামাজ আদায় শেষে মাগুরা নোমানী ময়দান থেকে নবী প্রেমী তাওহিদী জনতার ব্যানারে বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়। মিছিলটি সারা শহর প্রদক্ষিণ করে চৌরঙ্গী মোড়ে গিয়ে সমাবেশে মিলিত হয়। এ সময় বক্তব্য রাখেন ধলহারা মাদ্রাসার মুহতামিম জাবের হুসাইন, মোহম্মদপুর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান বরকত হোসেন ও আব্দুর রহিম। সমাবেশে বক্তারা ভারতীয় সকল পণ্য বর্জনসহ কটূক্তিকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। সমাবেশে বিভিন্ন বয়সী কয়েক হাজার মানুষ অংশ নেন।

 

Lab Scan