মনিরামপুরে আ.লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় গ্রেফতার ১০, জামিনে মুক্তি

এস.এম.মজনুর রহমান,মনিরামপুর(যশোর)॥ যশোরের মনিরামপুরে আধিপত্য বিস্তরকে কেন্দ্র করে মধুপুর বাজারে আওয়ামীলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের পর পুলিশ বুধবার সকালে ১০ জনকে গ্রেফতার করে। পরে পুলিশ তাদেরকে আদালতে চালান দেয়। তবে বিকেলে তারা আদালত থেকে জামিনে মুক্তি পায়। মামলার তদন্তকারী অফিসার ওসি(তদন্ত) শিকদার মতিয়ার রহমান জানান, এলাকায় আধিপত্য বিস্তরকে কেন্দ্র করে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ২ এপ্রিল উপজেলার মধুপুর বাজারে স্থানীয় আওয়ামীলীগের প্রভাষক বুলবুল আহমেদ এবং হাদিউজ্জামান রানা গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে রানা গ্রুপের ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক মুছা এবং মানিক, আলিম এবং হাসান আহত হয়। এ ঘটনায় হাদিউজ্জামান রানা গ্রুপের পক্ষে আহত মানিকের পিতা আবদুল আলিম বাদি হয়ে বুলবুল গ্রুপের ১১ জনের নাম উল্লেখসহ একটি মামলা করেন। পুলিশ এর মধ্যে বুলবুলের ছেলে আবুল কালাম আজাদকে ওই দিনই গ্রেফতার করে আদালতে চালান দেয়। পরে অবশ্য সে জামিনে মুক্তি পায়।
ওসি(সার্বিক) রফিকুল ইসলাম জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার সকাল আটটার দিকে এলাকায় অভিযান চালিয়ে মামলার অপর ১০ জনকে গ্রেফতার করা হয়। এরা হলো আব্দুল্লাহ, মুনির হোসেন, নাইমুর হোসন, সাহরিয়ার হোসেন, সবুজ পরামানিক, সোহাগ হোসেন, আকতার হোসেন, রফিকুল ইসলাম, মেহেদী হাসান এবং হিমেল হোসেন। পুলিশ দুপুর ১২ টার দিকে এদেরকে আদালতে চালান দেয়। জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারন সম্পাদক অ্যাডভোকেট এমএ গফুর জানান, ১০ জনের জামিনের প্রার্থনা করা হলে শুনানী শেষে আদালত মঞ্জুর করেন। হরিদাসকাটি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আলমগীর হোসেন লিটন জানান, বুধবার বিকেলে তারা মুক্তি পান।

ভাগ