মণিরামপুরে প্রধান শিক্ষককে জুতাপেটা করলেন সহকারী শিক্ষিকা

0

স্টাফ রিপোর্টার,মণিরামপুর(যশোর)॥ যশোরের মণিরামপুরে দেলুয়াবাড়ি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নীহার রঞ্জন রায়কে জুতাপেটা করেছেন এক সহকারী শিক্ষিকা। রোববার দুপুরে বিদ্যালয়ের মধ্যে এই ঘটনা ঘটে। এ ঘটনা জানাজানি হলে অভিভাবকসহ এলাকাবাসী বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে উত্তপ্ত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেন। এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, দেলুয়াবাড়ি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নীহার রঞ্জনের সাথে বিভিন্ন বিষয়াদী নিয়ে বেশ কিছুদিন যাতব এক সহকারি শিক্ষিকার বিবাদ চলে আসছে। রোববার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে ওই শিক্ষকা বিদ্যালয়ে গিয়ে হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর করতে যান অফিস কক্ষে। কিন্তু খাতা না পেয়ে তিনি পরীক্ষার কক্ষে যান। পরীক্ষা শেষে দুপুর একটার দিকে তিনি প্রধান শিক্ষকের কক্ষে যান হাজিরা খাতায় স্বাক্ষরের জন্য। কিন্তু ওই শিক্ষিকার অভিযোগ এ সময় প্রধান শিক্ষক তাকে হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর করতে বাধা দেন। এ নিয়ে প্রধান শিক্ষকের সাথে তার কথাকাটাকাটি হয়। শিক্ষিকার অভিযোগ, এক পর্যায়ে প্রধান শিক্ষক তার শরীরে হাত তোলাসহ কাপড় ধরে টানাটানি করেন। প্রতিবাদে ওই শিক্ষিকা কক্ষের মধ্যেই প্রধান শিক্ষককে জুতাপেটা করেন। পরে এ বিষয়টি জানাজানি হলে এলাকাবাসী প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন। খবর পেয়ে থানা থেকে এসআই আব্দুর রাজ্জাকের নেতৃত্বে একদল পুলিশ সদস্য গিয়ে পরিস্থিত শান্ত করেন।
এ বিষয় বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও ভোজগাতী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আনিছুর রহমান তজু জানান, বিষয়টি নিয়ে দু-এক দিনের মধ্যে ম্যানেজিং কমিটির জরুরী সভা ডেকে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ব্যাপারে জানতে প্রধান শিক্ষক নীহার রঞ্জন রায়ের ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি। থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) শেখ মনিরুজ্জামান জানান, এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ করা হলে অবশ্যই তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার বিকাশ চন্দ্র সারকার জানান, বিষয়টি তিনি শুনেছেন। তবে আজ সোমবার সরেজমিন গিয়ে তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Lab Scan