বেনাপোল বাজার কমিটির কার্যালয়ে মেঝে খুঁড়ে লাশের সন্ধানে সিআইডি

শার্শা (যশোর) সংবাদদাতা॥ ছয় বছর আগে গুম হওয়া যশোরের শার্শা থানা ছাত্রলীগের সভাপতি ও বেনাপোল পৌর কাউন্সিলর তারিকুল আলম তুহিনের লাশের সন্ধানে ঢাকা থেকে আসা একটি সিআইডি প্রতিনিধি দল এখন বেনাপোলে। এসপি উত্তম কুমারের নেতৃত্বে সাত সদস্যের সিআইডির দলটি যশোরের একজন প্রথম শ্রেণির ম্যাজিস্ট্রেট কাওছার হামিদের উপস্থিতিতে লাশের সন্ধান পরিচালনা করছেন। প্রতিনিধি দলটি বেনাপোল বাজার কমিটির কার্যালয়ের ভেতরে প্রায় ১০ ফুট মেঝের মাটি খুঁড়ে লাশের সন্ধান চালাচ্ছে।
২০১৩ সালের ৭মার্চ ঢাকার ন্যাম ফ্লাট থেকে বের হয়ে আর ফিরে আসেনি শার্শা থানা ছাত্রলীগের সভাপতি ও বেনাপোল পৌর কাউন্সিলর তারিকুল আলম তুহিন। অনেক আন্দোলন ও সংগ্রাম, মানববন্ধন করেও তাকে আজও খুঁজে পাওয়া যায়নি। এ ব্যাপারে তুহিনের চাচাতো ভাই মাহমুদ বাদী হয়ে ঢাকা শেরে বাংলা থানায় অজ্ঞাত আসামি করে একটি মামলা করেন। সে মামলা এখন সিআইডিতে। সিআইডি সে মামলা তদন্তে লাশের সন্ধানে এখন বেনাপোলে। সিআইডি যখন বেনাপোল বাজার কমিটির কার্যালয়ের মেঝের মাটি খুঁড়ছিল তখন বেনাপোলের শ শ উৎসুক মানুষ ঘটনা স্থলে ভিড় করে। এ সময় বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশের পরিদর্শকসহ (তদন্ত) অনেক অফিসার উপস্থিত ছিলেন। এ ব্যাপারে গুম হওয়া তারিকুল আলম তুহিনের বড় ভাই বেনাপোল ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক শরিফুল আলম শাহিন ও তুহিনের স্ত্রী উপস্থিত ছিলেন।
প্রভাষক শাহিন বলেন, ‘তুহিন গুম হলে আমরা পরিবারের পক্ষ থেকে সাংবাদিক সম্মেলন করেছি। সেখানে তুহিন গুমের ঘটনায় বেনাপোলের একজন শীর্ষ জনপ্রতিনিধিকে ইঙ্গিত করা হয়।’ তার পরেও প্রশাসন কোনো ব্যবস্থা নেয়নি বলে জানান তিনি। ছয় বছর পার হলেও তুহিনের গুমের কোন হদিস না পাওয়ায় পরিবারসহ বেনাপোলের সাধারণ মানুষ ক্ষুব্ধ। এ ব্যাপারে বেনাপোল বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক ওহিদুজ্জামান দুদুর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন সিআইডি প্রতিনিধি দল তাকে তাদের কার্যালয় খুলে দিতে বলেন। ওহিদুজ্জামান দুদু বিষয়টি জানতে চাইলে প্রতিনিধি দলটি বলেন এখানে শার্শা থানা ছাত্রলীগের সভাপতি ও বেনাপোল পৌর কাউন্সিলর তারিকুল আলম তুহিনের লাশ আছে। ওহিদুজ্জামান দুদু বলেন গত চার বছর আগে বেনাপোল বাজার কমিটি ঘরটি ভাড়া নিয়েছে। তিনি বলেন তুহিন গুম হয়েছে ছয় বছর আগে। এ ব্যাপারে সিআইডি প্রতিনিধি দলে থাকা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কওছার হামিদ এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন অভিযান শেষ না হওয়া পর্যন্ত কোনো কিছু বলা সম্ভব না।

ভাগ