বেগারীতলায় ৫ মৃত্যুর ঘটনায় ঘাতক কাভার্ডভ্যানের চালক ও সহকারী আটক

0

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোর-মণিরামপুর সড়কের বেগারীতলা বাজারে ৫ জন নিহতের ঘটনায় ঘাতক কাভার্ডভ্যানের চালক ও তার সহকারীকে আটক করেছে পুলিশ।  মঙ্গলবার দুপুরে ময়মনসিংহ থেকে তাদের আটক করা হয়। ঘটনার সময় তারা পালিয়ে যান।
আটক চালকের নাম আলমগীর হোসেন (২৩)। তিনি নেত্রকোনার আটপাড়া উপজেলার মোবারকপুর বানিয়ানজান এলাকার সামছুল হকের ছেলে ও তার সহকারীরা নাম আনোয়ার হোসেন (১৯)। তিনি ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলার সন্ধ্যাকুরা এলাকার সহিদুল ইসলামের ছেলে।
যশোরের মণিরামপুর থানা পুলিশের ওসি শেখ মো. মনিরুজ্জামান জানান, নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বেগারীতলা বাজারের একটি হোটেলে কাভাড্যভ্যান ঢুকে পড়লে ৫ জন নিহত হয়। ওই ঘটনার সময় চালক ও তার সহকারী পালিয়ে যায়। এ ঘটনার পর পুলিশ কাভার্ডভ্যানের চালক ও হেলপারকে শনাক্ত এবং আটকের জন্য অভিযান শুরু করে। এক পর্যায়ে বিভিন্ন তথ্যের ভিত্তিতে এবং তথ্য প্রযুক্তির সাহায্যে তাদেরকে শনাক্ত করা হয়। এরপর পুলিশ মঙ্গলবার দুপুরে ময়মনসিংহের আলাদা স্থানে অভিযান চালিয়ে পলাতক কাভার্ডভ্যানচালক আলমগীর হোসেন ও হেলপার আনোয়ার হোসেনকে আটক করে। সেখান থেকে সন্ধ্যায় তাদেরকে মণিরামপুর থানায় নিয়ে আসা হয়।
তিনি জানান, আটকদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, গাজীপুর থেকে বিস্কুট নিয়ে কাভার্ডভ্যানটি সাতক্ষীরায় যাচ্ছিলো। পথে মণিরামপুরের বেগারীতলা বাজারে পৌঁছালে চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেললে কাভার্ডভ্যানটি রাস্তার পাশের একটি হোটেলের ভেতর ঢুকে পড়ে। এ সময় চালক ও হেলপার সেখান থেকে পালিয়ে ময়মনসিংহে চলে যান।
গত ২ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে ৭টার দিকে দ্রুতগামী একটি কাভার্ডভ্যান (ঢাকা মেট্রো-ন-২০-১৭৫১) নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে যশোর-সাতক্ষীরা সড়কের বেগারীতলা বাজারের একটি হোটেলে ঢুকে পড়লে সেখানে অবস্থান করা এক শিশুসহ ৫ জন নিহত হয়। এ ঘটনায় নিহতের মধ্যে হাবিবুর রহমানের ভাই ইব্রাহিম খলিল গত ৩ ডিসেম্বর সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮ এর ১০৫ ধারায় মণিরামপুর থানায় একটি মামলা করেন।

Lab Scan