বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান, বাড়িতে ঢুকে কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ ও লুট

0

খুলনা ব্যুরো ॥ খুলনায় বাড়িতে ঢুকে বিয়ের আশীর্বাদপ্রাপ্ত (বাগদান) সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের এক কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ ও লুটপাটের অভিযোগ উঠেছে। সোমবার দিবাগত রাত ২টার দিকে নগরীর হরিণটানা থানার কৈয়া বাজার সংলগ্ন গোলা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে গোবিন্দ ফৌজদার (৩২) নামে এক যুবককে আটক করেছে। ঘটনার শিকার কিশোরী ও তার মা-বাবাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
প্রতিবেশী ভারতী মল্লিক ও উত্তম কুমার মল্লিক জানান, গোবিন্দ ফৌজদার নামে স্থানীয় এক যুবক প্রায়ই ওই কিশোরী মেয়েটিকে বিয়ের প্রস্তাবসহ নানাভাবে উত্ত্যক্ত করতো। কিন্তু মেয়েটি তার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় সে ক্ষুব্ধ হয়। পরে পরিকল্পিতভাবে তাকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ ও বাড়িতে লুটপাটের ঘটনা ঘটিয়েছে। তারা জানান, ধর্ষণের শিকার মেয়েটির কয়েকদিন আগে আশীর্বাদ (বাগদান) হয়েছে। কয়েকদিন পর তার বিয়ে হওয়ার কথা রয়েছে।
পুলিশ জানায়, গত সোমবার দিবাগত রাত দুটোর দিকে তিনজন দুর্বৃত্ত কৈয়া বাজার সংলগ্ন গোলা গ্রামের ওই বাড়িতে প্রবেশ করে। এ সময় তারা বাড়ির লোকজনকে জিম্মি করে কিশোরীকে ধর্ষণ করে। এরপর দুর্বৃত্তরা ওই বাড়ি থেকে স্বর্ণালঙ্কারসহ মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।
ঘটনা নিশ্চিত করে হরিণটানা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মনিরুল ইসলাম জানান, ধর্ষণের শিকার মেয়েটিকে গোবিন্দ নামে একজন যুবক বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছিল। প্রস্তাবে মেয়ের পরিবার রাজি না হওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে তিনজন মিলে তাকে ধর্ষণ করেছে। আটক গোবিন্দ ফৌজদারকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এ ঘটনায় জড়িত অপর দু’যুবককে আটকের জন্য অভিযান চলছে।
এ ব্যাপারে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের (কেএমপি) কমিশনার মো. মোজাম্মেল হক বলেন, ‘ঘটনাটিকে আমরা অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে নিয়েছি। অপরাধী কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।’

Lab Scan