বিশ্বজুড়ে নিন্দা: ‘যুদ্ধাপরাধ ও মানবতা বিরোধী অপরাধ করেছে ইসরাইল’

0

লোকসমাজ ডেস্ক॥ গাজার হাসপাতালে ইসরাইলের বোমা হামলায় কমপক্ষে ৫০০ মানুষ নিহত হওয়ার পর এর বিরুদ্ধে সৌদি আরবসহ বিশ্ব নেতারা কড়া নিন্দা জানাচ্ছেন। একে গণহত্যা ও যুদ্ধাপরাধ বলে অভিহিত করেছেন জর্ডানের বাদশা দ্বিতীয় আবদুল্লাহ। তিনি এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও আরব নেতাদের নিয়ে তার দেশে সামিট বাতিল করে দিয়েছেন। তিনি ইসরাইলের হামলা প্রসঙ্গে বলেছেন, এই অপরাধের পরও কোনো মানুষ নীরব থাকতে পারেন না। অন্যদিকে একে মানবতাবিরোধী অপরাধ বলে আখ্যায়িত করেছে রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। মঙ্গলবার ওই হামলার পর একে নৃশংস হামলা বলে সরাসরি প্রত্যাখ্যান করেছে সৌদি আরব। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, এ হামলার মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক আইন, নীতি এমনকি আন্তর্জাতিক মানবাধিকার বিষয়ক আইনও লঙ্ঘন করা হয়েছে। আন্তর্জাতিক মহল থেকে অসংখ্য মানুষ আপিল করা সত্ত্বেও বেসামরিক লোকজনের বিরুদ্ধে অব্যাহতভাবে হামলা চালানোর কারণে ইসরাইলের নিন্দা করেছে সৌদি আরব। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, এই বিপজ্জনক ঘটনা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে দ্বিমুখী নীতি গ্রহণ থেকে বিরত রাখবে এবং বাছাই করা আন্তর্জাতিক মানবাধিকার বিষয়ক আইন অনুসরণ করা থেকে বিরত রাখবে। বেসামরিক লোকজনকে রক্ষার জন্য গুরুত্ব দিয়ে পদক্ষেপ নিতে হবে।
সৌদি আরবের বিবৃতিতে গাজায় অবরুদ্ধ মানুষদের জন্য জরুরি ভিত্তিতে খাদ্য ও ওষুধ পৌঁছানোর জন্য নিরাপদ করিডোর খুলে দেয়ার ওপর গুরুত্ব দেয়া হয়। বলা হয়, আন্তর্জাতিক নিয়মনীতি ও আইন ভঙ্গের জন্য অব্যাহতভাবে পুরোপুরি দায়ী ইসরাইলি বাহিনী।
গতকাল বুধবার রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, গাজায় হাসপাতালের ওপর হামলা হতাশাজনক এক অপরাধ। এক্ষেত্রে ইসরাইলকে স্যাটেলাইটের ছবি সরবরাহ করে প্রমাণ করতে হবে যে, তারা এই হামলায় জড়িত নয়। রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা রেডিও স্পুটনিককে বলেন, এই হামলা মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ।
হামলার নিন্দা জানিয়েছেন মিশরের প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল সিসি। তিনি মঙ্গলবার বিবৃতিতে বলেছেন, গাজায় হাসপাতালের ওপর ইসরাইলের বোমা হামলার সর্বোচ্চ নিন্দা প্রকাশ করি। এটা সুস্পষ্টভাবে আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন। ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রন বলেছেন, বেসামরিক মানুষকে টার্গেট করাকে কোনো কিছুতেই সমর্থন করা যায় না। বিলম্ব না করে তিনি গাজায় মানবিক সহায়তা পৌঁছে দেয়ার আহ্বান জানান। তিনি এক্সে (সাবেক টুইটার) লিখেছেন, গাজায় আল আহলি আরাবি হাসপাতালে হামলায় বহু ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। এ জন্য ফ্রান্স নিন্দা জানায়। নিহত ও আহতদের প্রতি সমবেদনা।
জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরাঁ হামলাকে ভয়ার্ত বা আতঙ্কজনক বলে উল্লেখ করেছেন। তিনি এক্সে এক বার্তা লিখেছেন, হতাহতদের পরিবারের প্রতি আমার সমবেদনা। আন্তর্জাতিক আইনের অধীনে হাসপাতাল এবং হাসপাতাল সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা সুরক্ষিত থাকবে । ইসরাইলের কড়া নিন্দা জানিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিবৃতিতে বলেছে, প্রাণহানিতে গভীর বেদনা প্রকাশ করছে আমিরাত। হতাহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা। যারা আহত হয়েছেন তাদের দ্রুত সুস্থতা কামনা করে আমিরাত। এতে অবিলম্বে শত্রুতা বন্ধ করার আহ্বান জানিয়ে বলা হয়, নিশ্চিত করতে হবে বেসামরিক লোকজন এবং প্রতিষ্ঠানগুলোকে টার্গেট করা হচ্ছে না। আরও প্রাণহানি রোধে অবিলম্বে একটি যুদ্ধবিরতিতে আসতে প্রচেষ্টা তীব্র করার জন্য তারা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানায়।
নিন্দা জানিয়েছে কুয়েত। বলেছে, গাজায় আল আহলি হাসপাতালে বর্বর বোমা হামলা চালিয়েছে দখলদার বাহিনী। এতে কয়েক শত নিরীহ মানুষ মারা গেছেন। এর কড়া নিন্দা জানায় কুয়েত। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিবৃতিতে বলে, দখলদার বাহিনী আন্তর্জাতিক মানবাধিকার বিষয়ক আইন লঙ্ঘন করে হাসপাতাল ও সরকারি স্থাপনাকে টার্গেট করছে। হামলার নিন্দা জানিয়েছে ওআইসি। এক্সে-এর প্রধান হিসেন তাহা এই হামলাকে যুদ্ধাপরাধ ও মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ বলে বর্ণনা করেছেন। ইসরাইলের অপরাধ, সন্ত্রাসী চর্চা এবং ফিলিস্তিনি জনগণের বিরুদ্ধে নৃশংস হামলার জন্য ইসরাইলকে জবাবদিহিতায় আনার আহ্বান জানান।
হামলার কড়া নিন্দা জানিয়েছে মুসলিম ওয়ার্ল্ড লিগ (এমডব্লিউএল)। এর প্রধান শেখ আব্দুল করিম আল ইসা বিবৃতিতে হামলাকে বর্বর অপরাধ বলে আখ্যায়িত করেছেন। এই ভয়াবহ গণহত্যা থেকে বেসামরিক লোকজনকে রক্ষার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের দায়বদ্ধতার কথা মনে করিয়ে দেন তিনি। ওদিকে কাতারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিবৃতিতে হামলার কড়া নিন্দা করে বলেছে, গাজা উপত্যকায় হামলা বিস্তৃত করেছে ইসরাইল। এর মধ্যে আছে হাসপাতাল, স্কুল ও অন্যান্য সেন্টার, যেখানে লোকজন অবস্থান করেন। এটা তাদের বিপজ্জনক এক বাড়াবাড়ি। ইসরাইলি হামলার কড়া নিন্দা জানিয়েছে জর্ডানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। বাদশা দ্বিতীয় আবদুল্লাহ হাসপাতালে বোমা হামলাকে গণহত্যা ও যুদ্ধাপরাধ বলে অভিহিত করে বলেছেন এই অবস্থায় কেউ নীরব থাকতে পারেন না। তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বর্বর এই হামলার কড়া নিন্দা জানিয়েছে। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, হামলায় কয়েক শত ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অনেক মানুষ। এর কড়া নিন্দা জানাই আমরা।
হাসপাতালে বেসামরিক স্থাপনাকে টার্গেট করে হামলা আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের প্রধান চার্লস মিশেল। তিনি ইউরোপিয়ান নেতাদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের পরে বলেছেন, নেতাদের সঙ্গে ভার্চুয়াল মিটিংয়ের সময়ে এ তথ্য জানতে পেরেছি। বেসামরিক অবকাঠামোর ওপর হামলা আন্তর্জাতিক আইন সমর্থন করে না। হামলাকে ভয়াবহ ও পুরোপুরি অগ্রহণযোগ্য বলে অভিহিত করেছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। তিনি বলেন, হাসপাতালে হামলা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। হামলার নিন্দা জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। তারা অবিলম্বে বেসামরিক মানুষ এবং গাজার স্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলোকে সুরক্ষিত রাখার আহ্বান জানিয়েছে। সংস্থার মহাপরিচালক ড. টেডরোস আধানম ঘেব্রেয়েসাস বলেছেন, আল আহলি আরব হাসপাতালে হামলার কড়া নিন্দা জানায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

 

Lab Scan