“বিপজ্জনকভাবে বৈষম্য ও বহুমাত্রিক দারিদ্র্য বাড়ছে”

0

লোকসমাজ ডেস্ক॥ সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. আবুল বারকাত বলেছেন, দেশে অবকাঠামোগত অনেক কর্মকাণ্ড চলছে। তবে কোভিড-১৯-এর কারণে দেশের শ্রেণিকাঠামোয় ব্যাপক যে পরিবর্তন ঘটছে, বিপজ্জনকভাবে যে বৈষম্য ও বহুমাত্রিক দারিদ্র্য বাড়ছে-তা সমাধানে সরকারের দৃশ্যমান কোনো পদক্ষেপ দেখা যাচ্ছে না। `মহামারি কোভিড-১৯ এর প্রভাব অভিঘাত ও মানব উন্নয়ন’ মূল প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে আগামীকাল শুক্রবার থেকে বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির দুদিন ব্যাপী সম্মেলন শুরু হচ্ছে। এটি সমিতির ২১তম দ্বিবার্ষিক সম্মেলন। ঢাকার ইস্কাটন গার্ডেন রোডে অর্থনীতি সমিতির মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়।
সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. আবুল বারকাত, সাধারণ সম্পাদক জামালউদ্দিন আহমেদ এবং সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক এ জেড এম সালেহ্। রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে দুই দিনব্যাপী সম্মেলনে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান, আটটি কর্ম অধিবেশন, একটি প্লেনারি অধিবেশন, সম্মেলন-উত্তর সাধারণ সভা এবং সমিতির কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ও উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশের প্রথম পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য ও তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. রেহমান সোবহান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. আবুল বারকাত। সংবাদ সম্মেলনে ড. আবুল বারকাত বলেন, একদিকে মুষ্টিমেয় ব্যক্তির কাছে অগাধ টাকা ও সম্পদের পাহাড় গড়ে উঠছে। অন্যদিকে দরিদ্র মানুষ ক্রমশ দরিদ্রতর হচ্ছে। দরিদ্রদের ভাগ্য পরিবর্তনের কাজে দৃশ্যমান কোনো অগ্রগতি হয়নি। করোনা ভাইরাসের কারণে বাংলাদেশের শ্রেণিকাঠামোয় ব্যাপক পরিবর্তন ঘটেছে, শহর থেকে ১ কোটি মানুষ উল্টো অভিবাসনে গ্রামে যেতে বাধ্য হয়েছে। তিনি বলেন, সমাজের সব ক্ষেত্রেই বৈষম্য চরম রূপ নিয়েছে, বহুমাত্রিক দারিদ্র্যের হার চরম অবস্থায় পৌঁছে গেছে। অথচ কভিড-১৯-এ সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত অনানুষ্ঠানিক খাতের দরিদ্র মানুষ তেমন কোনো প্রণোদনা ও সহায়তাই পায়নি। পক্ষান্তরে ধনীদের দেয়া প্রণোদনার অর্থের স্বল্প সুদের মেয়াদ আরো বাড়ানোর জন্য চাপ দেয়া হচ্ছে। তিনি বলেন, দ্রব্যমূল্যর ঊধ্বগতির কারণে সাধারণ মানুষ ভীষণ সঙ্কটে রয়েছে, ব্যাংকিং খাতে জবাবদিহিতা নেই, গণতন্ত্র বিপর্যস্ত, বাকস্বাধীনতা কমে আসছে। এমন অবস্থা ভবিষ্যতে দেশে বড় ধরনের সঙ্কট বয়ে আনতে পারে। সংবাদ সম্মেলনের জানানো হয়, বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির কার্যনিবাহক কমিটি ‘মুজিব জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে’ অর্থনীতিশাস্ত্রে অনন্যসাধারণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ অধ্যাপক ড. আবুল বারকাতকে ‘মুজিব স্বর্ণপদক’ প্রদান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
দুই দিনব্যাপী এই সম্মেলনের একটি বিশেষ প্লেনারি সেশন ও আটটি কর্ম অধিবেশনসহ সমিতির কার্যনির্বাহক কমিটির সাধারণ সভা ও নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ‘কোভিড-১৯ থেকে শোভন সমাজ’ শীর্ষক বিশেষ প্লেনারি অধিবেশনটি উৎসর্গ করা হয়েছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমেদের সভাপতিত্বে এতে একক বক্তা থাকবেন অধ্যাপক ড. আবুল বারকাত। বিশেষ প্লেনারি সেশন ও কর্ম-অধিবেশনগুলোতে সভাপতি হিসেবে দেশের প্রাজ্ঞ অর্থনীতিবিদ ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ, অধ্যাপক ড. আবুল বারকাত, ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. এম এ সাত্তার মন্ডল, ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ, অধ্যাপক ড. আবদুল বায়েস, অধ্যাপক ড. শফিক উজ জামান, অধ্যাপক ড. মোস্তাফিজুর রহমান এবং রাষ্ট্রদূত এম. আব্দুল হান্নান-এর উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে। এই সম্মেলনে ৮৪টি প্রবন্ধ উপস্থাপন করা হবে। সারাদেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলা থেকে প্রায় পাঁচ হাজার অর্থনীতিবিদ এই সম্মেলনে যোগ দেবেন বলে মনে করা হচ্ছে।

Lab Scan