বিদ্যালয়ে দাতা সদস্য করার নামে ১০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে মামলা!

0

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোরের মণিরামপুর উপজেলার পাঁচকাটিয়া পাঁচবাড়িয়া মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের দাতা সদস্য করার নামে প্রতারণার মাধ্যমে ১০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে প্রধান শিক্ষক ও সভাপতিসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে বুধবার আদালতে মামলা হয়েছে। পাঁচকাটিয়া গ্রামের অধীর পাড়ের ছেলে বিদ্যালয়ের অভিভাবক সদস্য বিপদ ভঞ্জন পাড়ে মামলাটি করেছেন। জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইমরান আহমেদ অভিযোগের তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) আদেশ দিয়েছেন।
আসামিরা হলেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক চৈতন্য কুমার বিশ্বাস, সভাপতি ধীমন মল্লিক ও অভিভাবক সদস্য ভোলানাথ বিশ্বাস।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, বাদী বিপদ ভঞ্জন পাড়ে বিদ্যালয়ের অভিভাবক সদস্য। উল্লিখিত আসামিরা দীর্ঘদিন ধরে তাকে দাতা সদস্য হওয়ার জন্য প্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন। ২০১৮ সালের ৫ জানুয়ারি বিপদ ভঞ্জন পাড়ে আসামিদের বাড়িতে ডেকে তাদেরকে ১০ লাখ টাকা দেন। শর্ত ছিলো পরবর্তী ৩ মাসের মধ্যে তাকে দাতা সদস্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করার। অন্যথায় তাকে টাকা ফেরত দেওয়ার অঙ্গীকার করেছিলেন আসামিরা। কিন্তু শর্ত অনুযায়ী তাকে ৩ মাসের মধ্যে তাকে বিদ্যালয়ের দাতা সদস্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি। যে কারণে বিপদ ভঞ্জন পাড়ে আসামিদের কাছে টাকা ফেরত চাইলে তারা ঘোরাতে থাকেন। এমনকি তারা অপরিচিত মোবাইল ফোন নম্বর থেকে কল দিয়ে পূর্ব বাংলার কমিউনিস্ট পার্টির সদস্য পরিচয়ে তাকে হত্যা ও অপহরণের হুমকি দেন। এরপর গত ২ সেপ্টেম্বর সকালে আসামিদেরকে নিজ বাড়িতে ডেকে এনে
টাকা ফেরত চান বিপদ ভঞ্জন পাড়ে। এ সময় তারা টাকা ফেরত না দিয়ে উল্টো ভয়ভীতি দেখিয়ে সেখান থেকে চলে যান। ফলে কোনো উপায় না পেয়ে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন বিপদ ভঞ্জন পাড়ে।

Lab Scan