বিজয়া দশমীতে এবারও সাতক্ষীরা সীমান্তে অনুষ্ঠিত হয়নি দুই বাংলার মিলনমেলা

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি॥ ইছামতির দুই পারের মানুষকে এবারও স্ব স্ব জলসীমানার মধ্যে থেকে প্রতিমা বিসর্জন দিতে হয়েছে সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার সীমান্ত এলাকায় ইছামতি নদীতে এবারও শারদীয় দুর্গাপূজার বিজয়া দশমীতে অনুষ্ঠিত হয়নি শত বছরের ঐতিহ্যবাহী দুই বাংলার মানুষের মিলনমেলা। ইছামতির দুই পারের মানুষকে স্ব স্ব জলসীমানার মধ্যে থেকে প্রতিমা বিসর্জন দিতে হয়েছে। গত কয়েক বছর যাবৎ নিরাপত্তার কথা বলে দুই দেশের সীমানায় পৃথকভাবে প্রতিমা বিসর্জনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে।
মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) সকাল থেকে ইছামতি নদীর দু’পারে উপস্থিত হাজার হাজার মানুষ অনেকটা হতাশ হয়ে ফিরে যান। তারা আগের মতো একসঙ্গে দুর্গোৎসব আয়োজনের দাবি জানান। এর আগে, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ) যৌথ সমাবেশ করে দুই দেশের নিরাপত্তা বিষয়ক কৌশল গ্রহণ করে। মিলনমেলায় অংশ নিয়ে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম বলেন, ‘প্রতি বছর দুই বাংলার মানুষ এই দিনটির অপেক্ষায় থাকে। এদিন তারা ভৌগলিক সীমানাকে ভুলে গিয়ে একাকার হয়ে যায়। দুই বাংলার এই মিলনমেলা আমাদের ঐতিহ্য হয়ে দাঁড়িয়েছে।’ মিলনমেলার হারানো ঐতিহ্য ফেরাতে দুই দেশের সরকারের পক্ষ থেকে উদ্যোগ গ্রহণ করার দাবি করেন তিনি। এবারের এ প্রতিমা বিসর্জনের মিলনমেলায় আরও উপস্থিত ছিলেন– জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ইলতুৎমিশ, দেবহাটা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুল গনি, উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাজিয়া আফরিন প্রমুখ।

ভাগ