ইঞ্জি.টিএস আইয়ূবসহ যশোরে বিএনপির ১৭ নেতাকর্মী আটক

0

 

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিএনপির জাতীয় নির্বাহী ও কৃষকদলের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সম্পাদক  ইঞ্জিনিয়ার টিএস আইয়ূবকে আটক করেছে যশোরের ডিবি পুলিশ। রোববার ভোররাতে নড়াইল শহরের শ্বশুরবাড়ি থেকে তাকে আটক করা হয়। এছাড়া যশোরে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের আরও ১৬ নেতা-কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।
পুলিশের একটি সূত্র জানায়, শনিবার দিবাগত রাত ৪টার দিকে যশোরের ডিবি পুলিশের একটি দল নড়াইল শহরে পৌরসভার বিপরীতে কৃষকদলের কেন্দ্রীয় নেতা ইঞ্জিনিয়ার টিএস আইয়ূবের শ্বশুরবাড়িতে অভিযান চালায়। এ সময় সেখান থেকে তাকে আটক করা হয়। পরে তাকে যশোর কোতয়ালি থানায় হস্তান্তর করে ডিবি পুলিশ। ইঞ্জিনিয়ার টিএস আইয়ূব কোতয়ালি থানার একটি কথিত নাশকতা মামলার আসামি।  রোববার দুপুরে তাকে ওই মামলায় আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
এদিকে গত শনিবার রাতে জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের আরও ১৬ নেতা-কর্মীকে আটক করে পুলিশ। আটকরা হলেন জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক ওমর খসরু রুমন, যশোর নগর যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক শহিদুল ইসলাম টগর, যশোর পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ড যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সোহানুর রহমান জাহিদ, ২ নং ওয়ার্ড যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক সাদিকুল ইসলাম, মৎস্যজীবী দলের নেতা আনছার আলী, যুবদল নেতা সাগর হোসেন, যশোর শহরের বারান্দীপাড়া কবরস্থান এলাকার মনিরুল জামান মহসিন, নড়াইল সদর উপজেলার মহিষখোলা গ্রামের মাশফিকুর রহমান ইমন, যশোর সদর উপজেলার বসুন্দিয়া ইউনিয়নের জয়ন্তা গ্রামের আক্তারুজ্জামান, কেশবপুর উপজেলার কুশলদিয়া গ্রামের মোবারক হোসেনের ছেলে আসাদুজ্জামান, আলতাপোল গ্রামের মোজাহার আলীর ছেলে হাফিজুর রহমান, বালিয়াডাঙ্গা গ্রামের রহমত আলীর ছেলে আব্দুর রাজ্জাক, ধর্মপুর গ্রামের জহুরুল হকের ছেলে শেখ লাইছুর রহমান, অভয়নগর উপজেলার জিগাডাঙ্গা গ্রামের মজিবর রহমানের ছেলে মিলন হোসেন, শার্শা উপজেলার বাগুড়ি গ্রামের আশিকুজ্জামান, বালিদহ গ্রামের খলিলুর রহমান ও মুক্তাদা খামারপাড়ার জামাল উদ্দিন । আটক নেতাকর্মীদের রোববার কথিত নাশকতার মামলায় আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

 

 

 

 

 

Lab Scan