বাল্যবিয়ের অভিযোগে নারীর বিরুদ্ধে মামলা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোরের শার্শা উপজেলার বাগুড়ি গ্রামের এক কিশোরকে ভালোবাসার ফাঁদে ফেলে বিয়ের অভিযোগে আমেনা খাতুন নামে এক নারীর বিরুদ্ধে আদালতে মামলা হয়েছে। আব্দুর রহমান রানা নামে ওই কিশোরের পিতা আব্দুর রহিম বাদী হয়ে গত বুধবার এই মামলাটি করেছেন। যশোরের জুডিসিয়াল ম্যজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক সাইফুদ্দিন হোসাইন অভিযোগটি আমলে নিয়ে তদন্ত করে শার্শা থানা পুলিশের ওসিকে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার আদেশ দিয়েছেন। অভিযুক্ত আমেনা খাতুন ঝিকরগাছা উপজেলার শংকরপুর গ্রামের কাওছার আলীর মেয়ে। বাদী আব্দুর রহিমের অভিযোগ, আমেনা খাতুন ঠক, প্রতারক ও একাধিক বিয়েতে আসক্ত। সে (আমেনা) তার নাবালোক ছেলে আব্দুর রহমান রানাকে ভালোবাসার ফাঁদে ফেলে। এরপর চক্রান্ত করে গত ২৭ জুলাই গোপনে ৩ লাখ টাকা কাবিনে তার ছেলেকে বিয়ে করতে বাধ্য করে। এ বিষয়টি জানাজানি হলে আমেনা খাতুন দাবি করে রানা তার স্বামী। এ সময় সে বিয়ের প্রমাণ হিসেবে এফিডেভিটের মাধ্যমে তৈরি করা একটি কাগজ দেখায়। এ কারণে আব্দুর রহমান রানা অপ্রাপ্তবয়স্ক হওয়ার পরও আমেনা খাতুন তাকে বিয়ে করে বাল্যবিবাহ নিরোধ আইনে অপরাধ করেছেন বলে বাদী তার মামলায় উলেখ করেছেন।

ভাগ