বাঘারপাড়ায় ঢাকা ফেরত বিএনপির ১০ নেতা-কর্মী আটক

0

বাঘারপাড়া (যশোর) সংবাদদাতা॥ যশোরের বাঘারপাড়ায় ঢাকা ফেরত ১০ বিএনপি নেতা-কর্মীকে আটক করছে পুলিশ। এরমধ্যে যশোরের অভয়নগর বিএনপির দুইজন ও সদর উপজেলার একজন রয়েছেন। বাঘারপাড়া উপজেলা বিএনপি নেতৃবৃন্দ বলছেন কর্মীদের মনে আতঙ্ক সৃষ্টি করতেই গায়েবি মামালায় এদের আটক দেখানো হচ্ছে। যাদের নামে মামলা আছে শুধুমাত্র তাদেরকেই আটক করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।
থানা সূত্রে জানা গেছে, ২৮ অক্টোবর ঢাকায় বিএনপির মহাসমাবেশ শেষ করে বাড়ি ফিরছিলেন নেতাকর্মীরা। বাড়িতে যাওয়ার আগেই গত শনিবার মধ্যরাতে উপজেলার খাজুরা, চাড়াভিটা বাসস্ট্যান্ড ও মাহমুদপুর বাজার থেকে ১০ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। আটকদের মধ্যে আছেন, জামালপুরে গ্রামের কাওছার মোল্লার ছেলে শাহাজাহান, অভয়নগর উপজেলার আলমডাঙ্গা গ্রামের আরশাদ আলীর ছেলে জাহিদুল ইসলাম, একই উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা গ্রামের জহুর আলীর ছেলে রানা বিশ্বাস, রায়পুর গ্রামের মৃত বাবর আলীর ছেলে বকুল হোসেন, নলডাঙ্গা গ্রামের তোতা মিঞার ছেলে মোশারফ হোসেন, উত্তর শ্রীরামপুর গ্রামের হাসেম আলীর ছেলে কবীর হোসেন, যশোর কোতোয়ালী থানার ঘুনি গ্রামের সালাউদ্দিনের ছেলে সেফায়েতউল্লাহ, বাঘারপাড়া পৌর সদরের মীরপুর গ্রামের ইমান আলীর ছেলে বিএনপির ওয়ার্ড সভাপতি আহম্মদ আলী, হাসান শেখের ছেলে শরিফুল ইসলাম, করিমপুর গ্রামের সামছুর রহমানের ছেলে আশরাফুল রহমান।
উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক শামছুর রহমান জানান, সরকার পতনের একদফা আন্দোলনে বিএনপির নেতা-কর্মীরা যাতে অংশ নিতে না পারেন সেকারণেই এ অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ। হাজার হাজার নেতাকর্মী বাড়ির বাইরে রাত কাটাতে বাধ্য হচ্ছেন। আতঙ্ক সৃষ্টি করতে গভীর রাতে বিএনপি কর্মীদের বাড়িতে অভিযান চালানো হচ্ছে। দলের সামান্য সমর্থক হলেও তাকে হয়রানি করছে পুলিশ। এরপরও কেন্দ্রের ঘোষিত কর্মসূচি সফল করতে উপজেলা বিএনপি সঠিক সময়েই রাজপথে উপস্থিত থাকবেন বলে জানিয়েছেন এ নেতা।
বাঘারপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহাদত হুসাইন জানিয়েছেন, বিভিন্ন নাশকতা মামলার এজাহারভুক্ত আসামিদের আটক করা হচ্ছে। আটক আসামীিদর কোর্টের মাধ্যমে রোববারই জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

Lab Scan