বাঘারপাড়ার ব্যবসায়ীকে অপহরণ ও হত্যা চেষ্টার অভিযোগে মামলা

0

 

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার জামালপুর গ্রামের মাটি ব্যবসায়ী সোহেল রানাকে কৌশলে অপহরণ ও খুনের চেষ্টার অভিযোগে মঙ্গলবার আদালতে মামলা হয়েছে। দুজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরও ৪/৫ জনকে আসামি করে মামলাটি করেছেন ভুক্তভোগী সোহেল রানা। সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার দালাল অভিযোগের তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য সিআইডি পুলিশকে আদেশ দিয়েছেন।
আসামিরা হলেন-সদর উপজেলার মামলাখোলা গ্রামের মৃত বাবু সারদারের ছেলে সাগর হোসেন ও মিন্টু মীরের ছেলে হাফিকুল ইসলাম।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, সোহলে রানা একজন মাটি ব্যবসায়ী। উল্লিখিত আসামিরা তার কাছে চাঁদা দাবি করেছিলেন। কিন্তু চাঁদা না পেয়ে তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে আসছিলেন। এক পর্যায়ে আসামিরা কৌশলে সোহেল রানার সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে তোলেন। ঈদের দিন আসামিরা পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী খুনের উদ্দেশ্যে কৌশলে প্রাইভেটকারে করে শার্শার নাভারন পার্কে বেড়াতে নিয়ে যান। রাতে ফেরার পথে বাঘারপাড়ার রুস্তমপুরের কদমতলা তেমাথা নামক স্থানে পৌঁছালে আচমকা আসামিরা সোহেল রানার ওপর চড়াও হন এবং চোখ ও মুখ বেঁধে তাকে দেবীনগর মুরগির ফার্মের দক্ষিণে বাঁওড়ের পাড়ের ঝোপের ভেতর নিয়ে যান। সেখানে তার কাছে থাকা সোনার চেইন, আংটি ও নগদ ৪২ হাজার টাকা কেড়ে নিয়ে তাকে বেধড়ক মারধর করা হয়। এরই এক পর্যায়ে মুখের গামছার বাঁধন খুলে গেলে সোহেল রানা চিৎকার চেঁচামেচি শুরু করেন। ফলে আসামিরা তাকে ফেলে রেখে দ্রুত সেখান থেকে চলে যান। পরে চিৎকার শুনে লোকজন এগিয়ে এসে সোহেল রানাকে উদ্ধার করেন।

 

Lab Scan