বাগেরহাটে ভুঁয়া পর্চার মাধ্যমে দলিল নিবন্ধনের অভিযোগ

0

বাগেরহাট সংবাদদাতা॥ বাগেরহাটে সীল ও স্বাক্ষর জাল করিয়া ভুঁয়া পর্চার মাধ্যমে দলিল নিবন্ধন করিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে মারুফ চৌধুরী নামের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় আসালাত চৌধুরীসহ কয়েকজন সোমবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে বাগেরহাট জেলা প্রশাসক ও মোল্লাহাট উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। আসালাত চৌধুরী বলেন, মারুফ চৌধুরী দীর্ঘদিন ধরে মোল্লাহাট উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) এর সীল ও স্বাক্ষর জাল করে বিভিন্ন অন্যায় কাজ করে আসছেন। এর ধারবাহিকতায় মোল্লাহাট উপজেলার ৪ নং সিংগাতি মৌজার এসএ ১২ নং এবং ডিপি ২৬ নং খতিয়ানের পর্চাটিতে জালজালিয়াতির মাধ্যমে অন্য আরেকজনের নাম লিখে দেয়। তারপরে ওই পর্চা দিয়ে ২০২১ সালের ১ ডিসেম্বর ১৮৬৯ নং দলিলের মাধ্যমে চুন্নু চৌধুরী নামের এক ব্যক্তিকে ১৩ শতক জমি দলিল করে দেয়।
মূলত তহশীল অফিস থেকে তোলা মূল পর্চায় ওই দলিলের দাতার নাম নেই। ওই পর্চায় শুধু চার জনের (আসালাত চৌধুরী, ওবায়েদ চৌধুরী, আবেদ আলী ও জাবেদ আলী) নাম রয়েছে। এই ধরণের কাজ মারুফ চৌধুরী আগেও করেছেন। আমরা তার অন্যায়ের বিচার চাই। এর পাশাপাশি ওই দলিলটি বাতিল করার জন্য উর্দ্ধোতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তিনি। শুধু আসালাত চৌধুরী নয়, সিংগাতী এলকার মিরাজ সরদার, শাহানারা বেগম ও সরদার কামরুল ইসলামও একই ধরণের অভিযোগ করেছেন মারুফ চৌধুরীর বিরুদ্ধে। অভিযোগে তারা বলেছেন দীর্ঘদিন ধরে মারুফ চৌধুরী জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে জমি দলিল সংক্রান্ত অপরাধ করে আসছেন। যার ফলে এলাকায় জমিজমা সংক্রান্ত নানা জটিলতা সৃষ্টি হচ্ছে। অভিযুক্ত মারুফ চৌধুরী বলেন, পূর্ব শত্রুতার জেরে আসালাত চৌধুরীসহ কয়েকজন ব্যক্তি এধরণের অপপ্রচার চালাচ্ছে। আমি এই জালিয়াতির সাথে জড়িত নই। মোল্লাহাট উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) অনিন্দ মন্ডল বলেন, কয়েকজন ব্যক্তি আমার কাছে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। খোজ খবর নিয়ে সত্যতা পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করার আশ্বাস দেন তিনি।

Lab Scan