বাকস্বাধীনতার জন্য লড়াই করে শান্তিতে নোবেল পেলেন দুই সাংবাদিক

0

লোকসমাজ ডেস্ক॥ গণতন্ত্র এবং দীর্ঘস্থায়ী শান্তির পূর্বশর্ত মতপ্রকাশের স্বাধীনতা রক্ষায় লড়াই করার জন্য ফিলিপাইনের মারিয়া রেসা এবং রাশিয়ার দিমিত্রি মুরাতভকে ২০২১ সালের নোবেল শান্তি পুরস্কার দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নরওয়েজিয়ান নোবেল কমিটি।
ফিলিপাইন এবং রাশিয়ায় মত প্রকাশের স্বাধীনতা রক্ষায় তাদের সাহসী লড়াইয়ের জন্য এবারের নোবেল শান্তি পুরস্কার পাচ্ছেন এই দুই সাংবাদিক। এই বছর নোবেল শান্তি পুরস্কারের অন্য প্রার্থীদের মধ্যে সুইডিশ কিশোরী পরিবেশকর্মী গ্রেটা থুনবার্গ, সংবাদ মাধ্যমের অধিকার গ্রুপ রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডারস (আরএসএফ) এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডবি¬উএইচও) নাম ছিলো। নরওয়ের পার্লামেন্টের পাঁচ সদস্যের নরওয়েজিয়ান নোবেল কমিটি শান্তিতে নোবেল পুরস্কারজয়ীকে নির্বাচিত করে। পুরস্কারজয়ীরা পুরস্কারজয়ীরা একটি স্বর্ণপদক ও এক কোটি সুইডিশ ক্রোনার (নয় কোটি ৭৫ লাখ ৬৩ হাজার দুই শ’ ৭১ টাকা) পুরস্কার লাভ করবেন। নরওয়েজিয়ান নোবেল কমিটির পক্ষ থেকে বলা হয়, গণতন্ত্র ও শান্তি বজায়ের পূর্বশর্ত হিসেবে মত প্রকাশের স্বাধীনতা সংরক্ষণে প্রচেষ্টার জন্য এই বছর মারিয়া রেসা ও দিমিত্রি মুরাতভকে পুরস্কার দেয়া হচ্ছে। ফিলিপিন্সের সংবাদমাধ্যম র‌্যাপলারের সহপ্রতিষ্ঠাতা মারিয়া রেসা। দেশটিতে প্রেসিডেন্ট রডরিগো দুতার্তের বিরুদ্ধে সমালোচনামূলক সংবাদের কারণে তাকে গ্রেফতারিরও শিকার হতে হয়। নোবেল পুরস্কার প্রদানকারী কমিটির পক্ষ থেকে বলা হয়, নিজ দেশে ক্ষমতার অপব্যবহার, সহিংসতার ব্যবহার ও একনায়কতন্ত্রের প্রসারের চিত্র তুলে ধরতে মত প্রকাশের স্বাধীনতার ব্যবহারের মাধ্যমে তিনি প্রশংসনীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন। অপরদিকে রাশিয়ার স্বাধীন সংবাদমাধ্যম নোভাজা গেজেটার ২৪ বছর প্রধান সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন দিমিত্রি মুরাতভ। কমিটির পক্ষ থেকে বলা হয়, রাশিয়ায় চলমান পরিস্থিতিতে মতপ্রকাশের স্বাধীনতার সংরক্ষণে মুরাতভ কয়েক দশক ধরে ভূমিকা রেখে আসছেন। গত বছর জাতিসংঘের ওয়ার্ল্ড ফুড প্রোগ্রাম (ডবি¬উএফপি) শান্তিতে নোবেল পুরস্কার লাভ করে।
সূত্র : বিবিসি

Lab Scan