বাংলাদেশ-ভারতের ৪ দিনের প্রদর্শনী `মৈত্রী চিত্রভাসের’ উদ্বোধন

0

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোরে শুরু হয়েছে বাংলাদেশ ও ভারতের চিত্রশিল্পীদের চারদিনের মিলন মেলা। সর্বভারতীয় সঙ্গীত ও সংস্কৃতি পরিষদের আয়োজনে তৃতীয় আন্তর্জাতিক চিত্র প্রদর্শনী ও শিল্প শিবির ‘মৈত্রী চিত্রভাস’কে কেন্দ্র করে দুই দেশের চিত্র শিল্পীদের এই মিলন মেলা। প্রাচ্যসংঘ যশোর মিলনায়তনে বৃহস্পতিবার থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়েছে ‘মৈত্রী চিত্রভাস’।
যশোরের অকাল প্রয়াত শিল্পী সোহেল প্রাণনের মা সালেহা বেগম ফিতা কেটে প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠানে প্রাচ্যসংঘের প্রতিষ্ঠাতা বেনজিন খানের সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইউল্যাবের প্রফেসর এএফএম শিপু মনিরুজ্জামান, সর্বভারতীয় সঙ্গীত ও সংস্কৃতি পরিষদের যুগ্ম-সম্পাদক ড. শান্তনূ সেনগুপ্ত, ভারতীয় চিত্র শিল্পী সুশান্ত সরকার ।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আলোচকরা বলেন, ‘মৈত্রী চিত্রভাস’ বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে একটি নতুন বন্ধন সৃষ্টি করবে। এর মধ্যে দুই দেশের কৃষ্টি ও সংস্কৃতির আদান-প্রদান ঘটবে। দুই দেশের নাগরিকরা না জানা অনেক কিছু জানতে পারবে। আমাদের সমস্ত ট্যাবু ভেঙে বিশ্ব মানুষের কাছে যেতে হবে। সবার আগে মানুষ হতে হবে।
উদ্বোধনী মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন প্রাচ্যসংঘের সভাপতি মাহমুদুল করিম ও সাধারণ সম্পাদক সোহেল মাসুদ হাসান টিটো।
অনুষ্ঠানের উদ্বোধক সালেহা বেগমকে আয়োজক সংগঠনের পক্ষ থেকে উত্তরীয় ও সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কলকাতার সর্বভারতীয় সঙ্গীত ও সংস্কৃতি পরিষদের সদস্যরা কবিতা আবৃত্তি, সঙ্গীত ও নৃত্য পরিবেশন করেন। অংশ নেন দিপংকার সমাদ্দার, পিনাকি লাহড়ি, জয় দেব দে ও সমাদৃতা সরকার।
অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যশোরের বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ অধ্যাপক নার্গিস বেগম, প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন, সম্পাদক এসএম তৌহিদুর রহমান, সাবেক সম্পাদক আহসান কবির বাবু, রোটারিয়ান এজেড এম সালেক, অ্যাড.হাজী আনিছুর রহমান মুকুল, প্রাচ্যসংঘের সুপ্রিম কাউন্সিলের সদস্য মুনির আহমেদ বাচ্চু, এমএ আকসাদ সিদ্দিকী শৈবাল প্রমুখ।
পরে অনুষ্ঠানের উদ্বোধক সালেহা বেগম উপস্থিত অতিথিদের নিয়ে দুই দেশের শিল্পীদের চিত্রকর্ম ঘুরে দেখান। চারদিনের এই চিত্র প্রদর্শনী ও শিল্প শিবির সোহেল প্রাণনের নামেই উৎসর্গ করা হয়েছে। প্রদর্শনীতে ভারতের ৬০ জন ও বাংলাদেশের ২০ জন শিল্পীর শিল্পকর্ম স্থান পেয়েছে। প্রতিদিন সকাল ১০ টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত প্রদর্শনী দর্শনার্থীদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। প্রদর্শনী শেষ হবে আগামী ১২ ফেব্রুয়ারি রবিবার। এটি সর্বভারতীয় সঙ্গীত ও সংস্কৃতি পরিষদের তৃতীয় আন্তর্জাতিক চিত্র প্রদর্শনী।

 

Lab Scan