বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাচন সুষ্ঠু ছিল না : যুক্তরাষ্ট্র

বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাচন সুষ্ঠু ছিল না উল্লেখ করে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র রবার্ট পালাডিনো বলেছেন, অভিন্ন স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়গুলোতে বাংলাদেশের ক্ষমতাসীন সরকার ও বিরোধীদের সাথে কাজ করে যেতে চায় যুক্তরাষ্ট্র। গতকাল মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরে নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে মুখপাত্র এ অভিমত ব্যক্ত করেন। তাকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, সম্প্রতি প্রকাশিত মানবাধিকার বিষয়ক যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিবেদনে বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে। বিরোধী দলগুলো এ নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করেছে। বাংলাদেশে গণতন্ত্র ও নাগরিকদের ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠায় যুক্তরাষ্ট্র কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে কি না?
জবাবে মুখপাত্র বলেন, ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাচন যে সুষ্ঠু ও অবাধ ছিল না তা যুক্তরাষ্ট্রের মানবাধিকার প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। এ নির্বাচনে জোর করে ব্যালট বক্স ভর্তি, বিরোধী দলীয় পোলিং এজেন্ট ও ভোটারদের ভয়ভীতি প্রদর্শনসহ ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।
তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ও বাংলাদেশের মধ্যে সহযোগিতার দীর্ঘ ইতিহাস রয়েছে। অর্থনৈতিক উন্নয়ন, গণতন্ত্রের প্রতি শ্রদ্ধা, মত প্রকাশের স্বাধীনতা ও মানবাধিকার সমুন্নত রাখার রেকর্ড বাংলাদেশের রয়েছে। এই ইস্যুগুলো পারষ্পরিক সাংঘর্ষিক নয়, বরং তা অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিকে ত্বরান্বিত করে। তাই অভিন্ন লক্ষ্যগুলো এগিয়ে নিতে ক্ষমতাসীন দল ও বিরোধীদের সাথে যুক্তরাষ্ট্র কাজ করে যেতে চায়।

ভাগ