বর্ণাঢ্য আয়োজনে সুন্দরবন দিবস পালিত

লোকসমাজ ডেস্ক॥ বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে কেবল মানুষকে নয়, সুন্দরবনকে ভালোবাসুন-এই প্রতিপাদ্য নিয়ে শুক্রবার খুলনায় ও বাগেরহাটে সুন্দরবন দিবস পালিত হয়েছে গতকাল। দিবসটি পালন উপলে সকালে খুলনা উমেশচন্দ্র পাবলিক লাইব্রেরি মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক। তিনি বলেন, ‘সুন্দরবন দেশের ঐতিহ্য ও জাতীয় সম্পদ। এই বন নিয়ে আমরা গর্ব করি। সুন্দরবন বাংলাদেশকে মায়ের মতো রা করে। কিন্তু কিছু লোক এই বনকে ধ্বংস করার চেষ্টা করছে। তাই সুন্দরবনকে রার জন্য এই অঞ্চলের মানুষকেই আগে এগিয়ে আসতে হবে।’ যারা সুন্দরবনকে ধ্বংস করতে চায় তাদের আইনের আওতায় আনার পরামর্শ দেন সিটি মেয়র। খুলনা সার্কেলের বন সংরক মো. মঈনুদ্দীন খানের সভাপতিত্বে ও খুলনা প্রেসকাবের সাবেক সভাপতি ফারুক আহমেদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে খুলনার অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাজস্ব) সুবাস চন্দ্র সাহা, পুলিশের অতিরিক্ত উপমহাপরিদর্শক (অতিরিক্ত ডিআইজি) মো. হাবিবুর রহমান ও সুন্দরবন একাডেমির প্রতিষ্ঠাতা উপদেষ্টা স্বপন কুমার গুহ উপস্থিত ছিলেন। এসময় সুন্দরবন বিষয়ে তথ্য উপস্থাপন করেন বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মো. বশিরুল-আল-মামুন। এর আগে মেয়রের নেতৃত্বে সকালে নগরীর হাদিস পার্ক থেকে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদণি করে।
বাগেরহাট সংবাদদাতা জানান, আমাদের স্বার্থে সুন্দরবনকে রক্ষা করতে হবে। সুন্দরবন আমাদের দেশের নাম বহন করে চলছে। আমাদেরকে প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে রক্ষা করে আসছে। তবে মানুষ্য সৃষ্টির কোন দুর্যোগ যাতে না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। যে বন বিশ^ব্যাপী স্থান করে নিয়েছে সে বনকে সুরক্ষার দায়িত্ব নিয়ে কাজ করতে হবে। সেভ দ্য ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ড. শেখ ফরিদুল ইসলাম শুক্রবার সকালে বাগেরহাট প্রেসকাব মিলনায়তনে সুন্দরবন দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন। বাগেরহাট প্রেস কাবের সভাপতি অ্যাডভোকেট মোজাফফর হোসেনের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন সাধারণ সম্পাদক তালুকদার আব্দুল বাকি, প্রেস কাবের সাবেক সভাপতি আহাদ উদ্দিন হায়দার, সহ-সাধারণ সম্পাদক শেখ আজমল হোসেনসহ আরও অনেকে। বক্তারা সুন্দরবনের মর্যাদা বৃদ্ধি ও সুন্দরবন সুরক্ষায় ১৪ ফ্রেব্রুয়ারিকে জাতীয়ভাবে সুন্দরবন দিবস ঘোষণা করতে সরকারের প্রতি দাবি জানান। পরে প্রেস কাবের সামনে থেকে একটি র‌্যালি বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে প্রেস কাবে এসে শেষ হয়।
মোংলা (বাগেরহাট) সংবাদদাতা জানান, বিশ্ব ভালবাসা দিবসে সুন্দরবন কে ভালবাসুন এ স্লোগানের মধ্যদিয়ে নানা আয়োজনে মোংলায় পালিত হয়েছে সুন্দরবন দিবস। ওয়ারকিপার্স বাংলাদেশ ও পরিবেশ আন্দোলন বাপা’র আয়োজনে দিবসটি পালন উপলক্ষে শুক্রবার সকাল ১১ টায় মোংলার সেন্টপলর্স উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে শহরে র‌্যালি বের হয়। র‌্যালি শেষে সুন্দরবনের প্রাণবৈচিত্র রক্ষার দাবিতে উপজেলা পরিষদের সামনের সড়কে মানববন্ধন পালিত হয়। বাপা’র বাগেরট জেলা সমন্বয়কারী নুর আলম শেখের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন। এখানে বক্তব্য রাখেন সমবায়ী নেতা পীযুষ কান্তি মজুমদার, অধ্যাপক সুরেশ চন্দ্র রায়, প্রভাষক মনোজ কান্তি বিশ্বাস, নিরাপদ সড়ক চাই মোংলার সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান মিলন, নারীনেত্রী গীতা রায়, কমলা সরকার, সুষ্মিতা মন্ডল, ইস্রাফিল বয়াতি, মারুফ বিল্লাহ প্রমুখ। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, সুন্দরবনের বৃক্ষনিধন ও বিষ দিয়ে মাছ শিকারের প্রবণতা বন্ধ করতে হবে। এ ছাড়া সুন্দরবনের প্রাণ পশুর নদীতে প্লাস্টিক দূষণ এবং শিল্পবর্জ্য দূষণ রুখতে না পারলে সুন্দরবন রক্ষা করা যাবে না। সুন্দরবনের চারপাশে অপরিকল্পিত শিল্পায়ন বন্ধ করার দাবি জানান তারা। মানববন্ধন শেষে সুন্দরবন দিবস উপলক্ষে অনুষ্ঠিত র‌্যালিতে জেলে, বাওয়ালী, মৌয়ালীসহ নানা শ্রেণি-পোশার মানুষ অংশগ্রহণ করেন। এছাড়া শিশুদের চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়।
শরণখোলা (বাগেরহাট) সংবাদদাতা জানান, বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে সুন্দরবনকে ভালবাসুন” এমন স্লোগান নিয়ে বাগেরহাটের শরণখোলায় পালিত হয়েছে সুন্দরবন দিবস। শুক্রবার সকাল ১০ টায় শরণখোলা রেঞ্জ অফিস সংলগ্ন খুড়িয়াখালী প্রদীপন সাইকোন শেল্টারে দিবসটি পালিত হয়।
স্থানীয় সাউথখালী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শরণখোলা থানার ওসি আব্দুল্লাহ আল আবু সাইদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন রেঞ্জ কর্মকর্তা জয়নুল আবেদীন। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সি এম সির সহ-সভাপতি ওয়াদুদ আকন, সাংবাদিক নজরুল ইসলাম আকন, স্টেশন কর্মকর্তা মিজানুর রহমান, ফরিদ খান মিন্টু, শিক শহিদুল ইসলাম খান, ইউপি সদস্য বাচ্চু মুন্সী, টাইগার টিমের আলম হাওলাদার। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন সোলায়মান হোসেন। শেষে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি স্থানীয় বাজার প্রদণি করে।

ভাগ